খুন হওয়ার সাত বছর পর বাড়ি ফিরলেন ‘মৃত শামীম’

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

আগস্ট ০৯ ২০২১, ২১:০৫

মামলায় নিহত, তবে ৭ বছর পর জীবিত অবস্থায় বাড়িতে ফিরে এসেছেন তিনি। আর এ হত্যা মামলার প্রধান আসামি হয়ে সাড়ে চার মাস হাজতবাস করেছেন আজিজার রহমান নামে এক ব্যক্তি।

ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়া সদর উপজেলার পৌর এলাকার কর্ণপুর পশ্চিমপাড়া মহল্লায়। বগুড়া সদর উপজেলা ফুলবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সুজন মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ২০১৫ সালে ২ জানুয়ারি কর্নপুর মহল্লার আজিজার রহমান তার বন্ধু শাখারিয়া গ্রামের শাহিনের ছেলে শামীমকে অপহরণের পর হ`ত্যা করে। এরপর ডোবাতে লুকিয়ে রাখে তার মরদেহ। এমন অভিযোগ করে ঐ বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি শামীমের মা ঝর্না বেগম বগুড়া সদর থানায় মামলা করেন।

এ হ`ত্যা মামলার প্রধান আসামি হিসেবে আজিজার রহমানকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ। পরবর্তী সাড়ে ৪ মাস কারাগারে থাকার পর হাইকোর্ট থেকে জামিন পান তিনি।

সোমবার সকালে নিহত সেই শামীমকে আসামি আজিজারের বাড়ির সামনে ঘোরাফেরা করতে দেখেন গ্রামবাসী। এরপর তাকে ধরে পুলিশের সোপর্দ করেন তারা।

আজিজার রহমান বলেন, শামীমের কাছ থেকে এক লাখ টাকা পাওনা ছিল। সাত বছর আগে শামীমকে টাকা জন্য চাপ দেই। ওই সময়ই শামীম গ্রাম থেকে উধাও হয়ে যায়। পরে আমার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন শামীমের মা ঝর্ণা বেগম।

তিনি আরও বলেন, শামীম হত্যা মামলাা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। আমি এ মামলায় সাড়ে চারমাস জেল খেটেছি। এখনো নিয়মিত আদালতে হাজিরা দিয়ে আসছি।

সোমবার সকালে মানিকচক এলাকায় শামীমকে বাইসাইকেল চালিয়ে ঘোরফেরা করতে দেখি। পরে আমার ছোটভাই তাকে আটক করে।

পরবর্তীতে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ তাকে (শামীম) থানায় নিয়ে যায়।

বগুড়ার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা বলেন, শামীম থানা হেফাজতে রয়েছেন। হত্যা মামলাটি আদালতে বিচারাধীন।