আকাবিরের সান্নিধ্যে বাহুবল উলামা পরিষদ

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

সেপ্টেম্বর ০৩ ২০১৮, ১৭:৪৪

শায়খুল হাদীস হুসাইন আহমদ বাহুবলীঃ “নিজের সমঝকে আকাবিরের সমঝের উপর ন্যস্ত করা আমাদের মাসলাক, আমাদের আদর্শ”

এই মাসলাক থেকে বিচ্যুতির বিষফলস্বরূপ
লা-মাযহাবীদের জন্ম।
বাহুবল উলামা পরিষদ এই লা-মাযহাবীদের কুমন্ত্রণার মোকাবিলায় দলীল ও বুদ্ধিভিত্তি লড়াই চালিয়ে যাবে ইনশা আল্লাহ।

আকাবিরের স্নেহধন্য হতে বাহুবল উলামা পরিষদ হাজির হয়েছে বাহুবলের আকাবিরের সান্নিধ্যে।

সেরেতাজ আকাবিরের নিখাদ ভালবাসা, তাঁদের বিপুল উৎসাহ প্রদান, সোনালী দিকনির্দেশনা আমাদের জন্য পাথেয় হয়ে থাকবে জীবনভর।

আজ থেকে ধারাবাহিক ভাবে তাদের সকলের মুখনিসৃত মধুমাখা বানীসমগ্র উপস্থাপন করবো জাতির সামনে।

প্রথমেই
বাহুবলের বিশিষ্ট ন্যায়বিচারকদের অন্যতম ব্যক্তিত্ব, বাতিলের মোকাবিলায় অগ্নিঝরা বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর, বাংলা-আরবী-উর্দু-ফার্সি সাহিত্যের অপূর্ব সমন্বয়ক বাগ্নীপুরুষ, হযরত মাওলানা আব্দুল বারী আনসারী হাফিযাহুল্লাহর অভিব্যক্তি _________

সু-স্বাগতম “@বাহুবল উলামা পরিষদে”র উম্মাহর খিদমতে আত্মনিয়োগের এই দৃঢ় প্রত্যয়কে।

বন্দুর এ সরু পথে তোমাদের সাহসী কদমকে ধন্যবাদ না দিয়ে কোন উপায় নেই। তবে থাকতে হবে সজাগ-সতেজ, হুশিয়ার-চৌকান্না। ব্যক্তিত্ব গঠন হবে এর প্রথম ও প্রধান সোপান। আলেমদের কর্মকুশলতা বুমেরাং হোক এই আশায় বুক বেধে বসে থাকা মানুষের আজ অভাব নেই। তাই কাজ করতে হবে অত্যন্ত হিকমাহর সাথে।

বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের এক পর্যায়ে দিল্লির অনতিদূরে থানাভবনে। মুসলিম মিল্লাতের ক্রান্তিকাল উত্তরণে হাজী ইমদাদুল্লাহ মুহাজিরে মক্কী রহঃকে আমীর করে, ফকীহুন্নাফস আল্লামা রশীদ আহমদ গংগুহী রহঃকে প্রধান বিচারপতি করে, শায়খুল ইসলাম কাসিমুল উলূমি ওয়াল খায়রাত আল্লামা কাশিম নানুতবী রহঃকে প্রধান সেনাপতি করে একটা সরকার ও গঠন করেছিলেন আমাদের আকাবির হযরাত। এতে মুসলিম সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠয় তাঁদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার দৃঢ়তাই ফুটে ওঠে। আমরাতো তাদেরই উত্তরসূরি। আমরা না হয় বাহুবলের ফিতনা-ফাসাদ, দাঙ্গা-হাঙ্গামা, মামলা-মুকাদ্দমা প্রতিরোধ কল্পে জনসচেতনতা আভিযান পরিচালনা করি ?
এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি আপ্লুত হয়ে যান। ক্ষানিক নীরবতার পর সজল নয়নে বলে ওঠেন আমি এমন একঝাঁক তরুণ হন্যে হয়ে খোঁজেছি জীবনভর কিন্তু———
কিন্তু জীনবসায়াহ্নে আজ তোমাদের আত্মপ্রকাশ আমাকে নতুন ভাবে স্বপ্ন দেখতে আশান্বিত করছে।
যাও নিরলস ভাবে কাজ চালিয়ে যাও। যখন যেখানে আমার প্রয়োজন হবে তোমরা শুধু আমাকে ইনফরমেশনটা দিবে। দুআ করি তোমাদের প্রচেষ্টায় আল্লাহ যেন বাহুবলের হারানো ঐতিহ্য-শান্তি ফিরিয়ে দেন।
আমরা সমস্বরে–আমীন।