২০১৯ হবে সৌদি আরবের বিনোদনের বছর, হোটেল রেস্টুরেন্টে চলবে লাইভ সঙ্গীতানুষ্ঠান, কনসার্ট

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

জানুয়ারি ২৪ ২০১৯, ১৯:৪৪

একুশে জার্নাল ডেস্ক: রক্ষণশীল সৌদি আরবে ২০১৯ সালটি আদতেই হতে চলেছে এক বিনোদনের বছর। লাইভ সঙ্গীতানুষ্ঠান, কমেডি শো’সহ আরো নানা আয়োজনের পরিকল্পনা ঘোষণা করা হয়েছে ইতোমধ্যেই।

দেশটির জেনারেল এন্টারটেইনমেন্ট অথরিটি (জিইএ) এ নতুন পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। ব্যাপক পরিসরে বিনোদনের এমন উদ্যোগ সৌদি আরবে আগে কখনো দেখা যায়নি।

বিশ্বের বিনোদন পিপাসু মানুষদের কাছে সৌদি আরবকে সেরা ১০ দেশের একটি পরিণত করার লক্ষ্য নিয়ে মঙ্গলবার রাতে রাজধানী রিয়াদে এক সংবাদ সম্মেলনে জিইএ প্রধান তুর্কি আল-শেখ ওই ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, লক্ষ্য অর্জনের জন্য জিইএ এরই মধ্যে দেশি-বিদেশি শতাধিক অংশীদারের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদী চুক্তি নিয়ে আলোচনা করেছে।

রেস্তোরাঁ এবং ক্যাফে মালিকদেরকেও লাইভ সঙ্গীত এবং কমেডির মত বিনোদোনের জন্য লাইসেন্স দেওয়া হবে বলে জানান আল-শেখ।

নতুন পরিকল্পনায় সৌদি আরবের ইতিহাস ও সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ বিষয় নিয়ে প্রতিযোগিতা আয়োজন করার কথাও বলা হয়েছে।

আল-শেখ বলেন, “বিনোদনের গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে প্রতিযোগিতা। ইসলামের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং আলেম-ওলমাদের পরামর্শক্রমে বিশেষ করে রমজান মাসে এসব প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে।”

প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করা হবে; যেখানে ডেভিড বেকহ্যাম ও জিনেদাইন জিদানের মত ফুটবল তারকারা খেলেবেন। জিইএ ‘বাস্কেটবল চ্যাম্পিয়নশিপ’ আয়োজনের কথাও ভাবছে বলে জানিয়েছে আরব নিউজ। আর কনসার্ট, মঞ্চ নাটক, কমেডি শো, ম্যাজিক শো, সার্কাস, টিভি গেম শো তো থাকছেই।

পর্যটক আকর্ষণের জন্য সৌদি আরবের ১৩টি নগরে মেলা, ভাসমান রেস্তোরাঁ এবং সিনেমা হল বানানোর পরিকল্পনাও করা হয়েছে।

তবে ২০১৯ সালের সবচেয়ে বড় একটি আকর্ষণ হতে পারে মাদাম তুসো জাদুঘরের মোমের মুর্তি। রাজধানী রিয়াদ এবং জেদ্দায় এ আয়োজনে রাজা ফয়সালের মোমের মূর্তি প্রদর্শন করা হবে।

দেশীয় ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতির প্রতি সম্মান রেখেই এসব আয়োজন করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন আল-শেখ।

বলেছেন, “আমরা পরিষ্কারভাবে আমাদের ধর্মীয় রীতিনীতি সম্পর্কে জানি। ইসলামিক মূল্যবোধের ভিত্তিতে আমরা সামনে অগ্রসর হব।”

অতীতে সৌদি আরবে এ ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হত মন্তব্য করে তিনি আরো বলেন, “আমাদের এ ইতিহাস আছে; ৪০ বছর আগে আমরা এমন করতাম, আমরা অতীতে যা করতাম এখন সেখানেই ফিরে যাচ্ছি।