সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচন দিন -ব্যারিস্টার মওদুদ

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

জানুয়ারি ৩০ ২০১৯, ০৯:১৫

এই সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকারের অধীঅধীনে আগামী তিন মাসের মধ্যে নতুন নির্বাচন দেয়ার দাবি জানিয়েছেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যরিস্টার মওদুদ আহমদ

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর প্রথম সংসদ অধিবেশন বসার প্রতিবাদে বিএনপি আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি এ কথা বলেন।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, আজ যে সংসদ বসতে যাচ্ছে-এ সংসদ জনগণের সংসদ নয়, জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়।৩০ডিসেম্বরের নির্বাচনে জনগণ তাদের ভোটের অধিকার হারিয়েছেন। তাই আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি নির্বাচন বাতিল করে আগামী তিন থেকে ছয় মাসের মাসের মধ্যে পূণরায়নির্বাচন দিন।যে নির্বাচনে জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে।

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ভোটের দাবি করে তিনি বলেন, আমরা এই সরকারের পদত্যাগের দাবি জানাচ্ছি। পাশাপাশি আগামীতে একটি নিরপেক্ষ অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন হতে হবে, তাহলে এদেশের মানুষ আবার ভোটের অধিকার ফিরে পাবেন এবং একটি কার্যকরী সংসদ বাংলাদেশ দেখতে পাবে।

৩০ ডিসেম্বরে ভোটে অনিয়মের কথা তুল ধরে বিএনপির এই জেষ্ঠ নেতা বলেন, এই নির্বাচনে ভোটারদের-প্রার্থীদের কেন্দ্রে যেতে দেয়া হয়নি। এই নির্বাচন করেছে প্রশাসন, পুলিশ, আইন-শৃংখলা বাহিনী। নির্বাচনে জনগণের কোনো সম্পৃক্ততাই ছিল না।এই নির্বাচন কেউ গ্রহণ করেনি।তাই সরকারকে বলব সংসদ ভেঙে দিন।

নির্বাচনে কারোর-ই প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটেনি দাবি করে মওদুদ বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের ভোট দেখে জনগন নির্বাক হয়েছে, মানুষ যেটা প্রত্যাশা করেছিল সেটি পায়নি। আমরা নির্বাচন আমরা প্রত্যাখ্যান করেছি শুধু তাই নয়, অবিলম্বে নতুন করে আরেকটা নির্বাচন দেয়ার দাবি
জানাচ্ছি।

কারাবন্দি নেতাকর্মীদের মুক্তির প্রত্যয় ব্যক্ত করে তিনি বলেন, আমাদের যে সব নেতাকর্মী জেলে আছেন, পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তাদেরকে তা মুক্ত করতে হবে। তাহলে দেশে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে। আর সেটা করার জন্য দেশের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, বিএনপি নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, প্রশিক্ষণ সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, মহিলা দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, বিলকিস জাহান শিরিন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট ২৮৮ আসনে নিরঙ্কুশ জয় পেয়ে সরকার গঠন করেছে। আজ নতুন সরকারের প্রথম অধিবেশন বসছে। বিএনপিসহ ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করেছে, শপথ নেয়নি ধানের শীষের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা।