ম্যাজিস্ট্রেটের ফেসবুক স্ট্যাটাস- আনন্দ প্রকাশ

Raja Babu

Raja Babu

অক্টোবর ০২ ২০২২, ১০:৫৭

বদিউজ্জামান রাজাবাবু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ আইনজীবী ইলিয়াস বিশ্বাস বলেন, ‘চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাম্প্রতিক সময়ে একাধিক বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটছে। পুলিশ এর সঙ্গে জড়িতদের ধরে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন। উল্টো ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির সবাইকে নিজের আত্মতৃপ্তির কথা প্রকাশ করেন। ম্যাজিস্ট্রেটের এমন স্ট্যাটাসে আদালত তথা পুরো বিচারালয়ের সুনাম সহ সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির শুভেচ্ছায় সিক্ত হচ্ছেন। একইসঙ্গে চাঁপাইনবাবগঞ্জের মানুষজনও এতে আনন্দিত হয়ে ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির এর জন্য দোয়া ও শুভেচ্ছা জানাতে ভুল করেননি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়ে ফেসবুকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির এর আত্মতৃপ্তির পোস্টকে মানবিক বিচারকের আত্মসন্তুষ্টি হিসেবে দেখছেন আইনজীবী ও নাগরিক সমাজের নেতারা। ওই পোস্ট দেখার পর থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীর প্রশংসায় ভাসছেন ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির।

ম্যাজিস্ট্রিক হুমায়ন কবির তার নিজস্ব ফেসবুক আইডি থেকে শনিবার ১ অক্টোবর ওই পোস্ট দিয়েছেন তাতে লেখা রয়েছে যা হুবহু তুলে ধরা হলো।

অবশেষে আমি সফল। সফল হলো দশ মাসের অন্তসত্ত্বা এবং তার গর্ভের সন্তান। আমি পেলাম মানসিক শান্তি, আর তারা পেল স্ত্রীর মর্যাদা এবং পিতৃপরিচয়। বরাবরের মতো সেদিনও আমি এজলাসে উঠলাম বিচার কার্য পরিচালনা করার জন্য। অনেকগুলো মামলার মধ্যে একটি মামলার ডাক পড়লো। মামলাটি যৌতুক আইনের অধীনে। আমি বাদিকে জিজ্ঞাসা করলাম আপনি কি সংসার করবেন। বাদী বললো, জি মাননীয় আদালত। আমি আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড়ানো ব্যক্তিটি কে জিজ্ঞাসা করলাম। আপনি কি সংসার করবেন, বললো না। বিজ্ঞ আইনজীবীদের বক্তব্য শ্রবণ করলাম, নথি পর্যালোচনা অন্তে দেখা যায় বাদীর সাথে আসামির গত ০৭/ ০৪/ ২০২১ ইং তারিখে বিবাহ হয় এবং ২৯/০৫/২০২১ ইং তারিখে তালাক হয়। মামলা দায়ের করা হয়েছে ২০২২ সনের মার্চ মাসে। বাদিকে জিজ্ঞাসা করলাম তালাকের পরে কেন যৌতুকের মামলা করেছেন। বাদী উত্তরে বললেন, মাননীয় আদালত আমি বর্তমানে দশ মাসের প্রেগন্যান্ট এবং আমার গর্ভের সন্তানের বাবা আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড়ানো ঐ ব্যক্তি। আমি আসামিকে জিজ্ঞাসা করতেই আসামি বললেন এটা মিথ্যা কথা মাননীয় আদালত। বাদির সাথে আজ থেকে ১৭ মাস আগে আমার তালাক হয়েছে ঐ সন্তান আমার হতে পারে না। আমি উভয় পক্ষের বিজ্ঞ আইনজীবীদের বললাম এজলাস থেকে নেমে আমার খাস কামরায় বসবো। উভয় পক্ষকে নিয়ে আমার খাস কামরায় বসলাম। প্রথমে আসামির বক্তব্য শ্রবণ করলাম। কোন ক্লু বের করতে পারলাম না। তার একই কথা আমি বহু পূর্বেই বাদিকে তালাক দিয়েছি। এরপরে বাদীর বক্তব্য শ্রবণ করলাম। বাদি তার বক্তব্যে বললেন আসামি অর্থাৎ আমার স্বামী আমাকে ভুল বুঝিয়ে তালাকনামায় স্বাক্ষর নিয়েছে। আমার স্বামী আমাকে বলেছে আমার পরিবার তোমার সঙ্গে বিয়ে মানছে না, তাই এই কাগজ দেখাতে হবে, যে তোমার সঙ্গে আমার তালাক হয়েছে কিন্তু এটা প্রকৃত তালাক না। আমি তার কথায় বিশ্বাস করে তালাকনামায় স্বাক্ষর করেছি। আমি তালাকনামায় স্বাক্ষর করলেও আমরা স্বামী-স্ত্রী হিসেবেই সংসার করেছি। আসামি বাদীর সমস্ত কথা অস্বীকার করলেন।এবার বাদী ২২/০২/২০২২ ইংরেজি তারিখের একটি অডিও রেকর্ড শোনালেন। যেখানে একে অপরের রোমান্টিকতা স্পষ্টতো। আরেকটু গভীরে প্রবেশ করতে সক্ষম হলাম। সূরা নিসার ১৩৫ নম্বর আয়াতের কথা তাদেরকে স্মরণ করিয়ে দিলাম। সদা সত্য- সাক্ষ্য দেবে। ধৈর্য ধরে দেড় ২ ঘন্টা তাদের জন্য কাটিয়ে দিলাম। এবার আমি আবারো আসামিকে জিজ্ঞাসা করলাম তালাক পরবর্তী আপনি কি আপনার স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেছেন আসামি স্বীকার করে বললেন, জি মাননীয় আদালত বাদী যা বলেছেন সেটাই ঠিক। আমি কষ্ট নিয়ে অনেক কথা বলে ফেলেছি। দীর্ঘ নিঃশ্বাস ছাড়লাম। মনে হলো আমি এভারেস্ট জয় করে ফেলেছি। অবশেষে সেই মাহেন্দ্রখন। ডাকলাম কাজী দিলাম বিয়ে। বিবেকের জাগ্রতায় প্রতিষ্ঠিত হলো ন্যায়বিচার।

ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির এর ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার পর ১ দিনে প্রায় 1.5k লাইক প্রায় 460 কমেন্ট 48 টা শেয়ার হয়েছে।
কমেন্টে অনেকে লিখেছেন, পাঠকের জন্য কয়েকজনের কমেন্ট তুলে ধরা হলো।

যমুনা টেলিভিশন ও দৈনিক যুগান্তরের স্টাফ রিপোর্টার সাংবাদিক মনোয়ার হোসেন জুয়েল কমেন্টে উল্লেখ করেন ‘মহৎ এবং সওয়াবের কাজ। বিজ্ঞ বিচারক মহোদয় আপনার মত মানুষ এখনও আছেন বলে আমাদের মত বিচার প্রার্থীরা ভরসা পাই। আলহামদুলিল্লাহ।

Mesba নামে এক যুবক কমেন্টে বলেন, Congratulations 💕💕💕 স্যার আপনার ব্যতিক্রমী চিন্তাভাবনা আমাকে মাঝেমধ্যেই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলে, কেননা আপনি এমন একটা জায়গায় অবস্থান করছেন যে, গুরুত্ব না দিয়ে এড়িয়ে যেতে পারবেন, এই সামান্য ব্যাপারগুলো, তবে মানবিক দিক থেকে একজন সাধারণ মানুষের মতো, অত্যন্ত বিচক্ষণতার সহিত এমন দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন।।।। – আপনার জন্য অন্তর থেকে মহান আল্লাহ পাকের কাছে ফরিয়াদ করি, তিনি যেন আপনাকে নীতি নৈতিকতার প্রতি অটুট থাকার তৌফিক দান করে এবং সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

Urmi Rahman নামে এক নারী লিখেন
আলহামদুলিল্লাহ আবারও আপনি জয়ী হয়েছেন। দোয়া করি আল্লাহ তাআলা আপনাকে এভাবেই ন্যায়বিচার করার ক্ষমতা যেন রাখেন।

ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির জানিয়েছেন, মানুষকে সচেতন করতে এই স্ট্যাটাস দিয়েছেন।আগামীতে এধরনের নিন্দনীয় ও জঘন্যতম কাজ যেন কেউ না করে। তাদের ভুলের কারণে তাদের অনাগত বাচ্চাটি এই পৃথিবীর মুখ নাও দেখতে পেত। মহান আল্লাহতালার কাছে শুকরিয়া আদায় করি আমি তাদের মাতা-পিতাকে এক করতে পেরেছি।

মডেল প্রেসক্লাব চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর সভাপতি মোঃ আখতারুজ্জামান বলেন, তিনি এর আগেও অনেক মামলায় মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন, কুড়িয়েছেন সম্মান। চাঁপাইনবাবগঞ্জে এমন জনপ্রিয় বিচারক অতীতে আসেনি ভবিষ্যতেও আসবে কিনা আমার সন্দেহ হয়। সত্যি সিনিয়র চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবির মহোদয় প্রশংসার দাবিদার।