ভারতের দিল্লীতে নির্বিচারে মুসলিম হত্যার প্রতিবাদে ফটিকছড়িতে বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

মার্চ ০৩ ২০২০, ১৯:০৫

ভারতের দিল্লীতে নির্বিচারে মুসলিম হত্যা এবং মসজিদ-মাদরাসা ও মুসলমানদের বাড়ি-ঘর, সহায়-সম্পদের উপর অগ্নিসংযোগ ও হামলার প্রতিবাদে ফটিকছড়িতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩মার্চ) বিকেল ৩টায় ইসলামী আইন বাস্তবায়ন কমিটির ব্যানারে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধন বিবিরহাট বাস স্টেশন চত্বর থেকে নাজিরহাট ঝংকার মোড় পর্যন্ত প্রায় ৫ কিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃতি লাভ করে। উপজেলার কওমী মাদ্রাসা গুলোর কয়েক হাজার ছাত্র-শিক্ষক মিছিল সহকারে মানববন্ধনে যোগ দেন।

এতে বক্তব্য রাখেন- হেফাজতে ইসলামের সিনিয়ির নায়েব আমির আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, যুগ্ম মহাসচিব আল্লামা সলিমুল্লাহ, মাওলানা মাহমুদুল হক, মাওলানা আইয়ুব বাবুনগরী, আমির উদ্দিন, জুনায়েদ বিন জালাল, মাওলানা ইলিয়াস, মাওলানা আবু বকর, মুফতি শওকত নানুপুরী, মাওলানা সলিম উদ্দিন দৌলতপুরী, খালেদ নানুপুরী, ক্বারী আবু সাঈদ, মাওলানা দিদার, মুফতি মুহাম্মদ, মাওলানা নিজাম উদ্দিন, আফাজ উদ্দিন প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ভারতকে মুসলমানরাই স্বাধীন করেছে। আর আজকে সেই মুসলমানদের সঙ্গে মোদি সরকার নিপীড়ন নির্যাতনমূলক আচরণ করছে। অথচ তারা নিজেরাই ছিলেন ইংরেজদের দালাল। সেই দালাল গোষ্ঠীই আজকে নিরীহ মুসলমানদের উপর অমানবিক নির্যাতন চালাচ্ছে। সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, দিল্লিতে মুসলমানদের গায়ে যদি আর রক্ত ঝরে ও একটা গুলি চলে তাহলে জিহাদের ঘোষণা দেওয়া হবে। মুসলিম ভাইদের রক্তের বদলা নিতে আর বসে থাকা যাবেনা।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ‘খুনি’ আখ্যা দিয়ে তাকে বাংলাদেশে কোনোভাবেই ঢুকতে দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে বক্তারা বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি একজন খুনি। ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের ওপর মোদি সরকার নির্যাতন হত্যা চালাচ্ছে। অনতিবিলম্বে মুসলমানদের ওপর নির্যাতন বন্ধ করার দাবি জানানো হয়।