পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রত্যহারকৃত সেনা ক্যাম্প পুনঃসস্থাপনসহ ৮দফা দাবিতে মানববন্ধন

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

মার্চ ২৮ ২০১৯, ১১:৪৩

বাঘাইছড়িতে নির্বাচন কর্মকর্তা সহ ৭ জনকে সন্ত্রাসী কতৃক হত্যা ও ২০ এর অধিক আহত করার প্রতিবাদে, নিরাপত্তার সার্থে প্রত্যাহার কৃত সেনা ক্যাম্প পুনঃস্থাপন সহ অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের দাবীতে বাঘাইছড়িতে মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ পরবর্তী প্রধান মন্ত্রি বরাবরে স্বারক লিপি প্রদান করে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদ।

গত ১৮/০৩/২০১৯ ইং রোজ সোমবার উপজেলা নির্বাচনে রাঙামাটি বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাচন শেষে উপজেলা সদরে ফেরার পথে ৯ মাইল নামক এলাকায় সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে নিহত ও আহতের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রধান মন্ত্রি বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করেছে পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদ বাঘাইছড়ি উপজেলা শাখা।

উক্ত অনুষ্ঠানে পিবিসিপির বাঘাইছড়ি উপজেলা সভাপতি জনাব মোঃ আবছার হোসেন এর সভাপতিত্বে ও পিবিসিপির বাঘাইছড়ি কাচালং ডিগ্রী কলেজের সভাপতি মোঃ মাসুদ রানার সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলে বাঘাইছড়ি উপজেলা নব নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ও পার্বত্য নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রিয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব আবুল কাইয়ুম, প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পিবিসিপির রাঙামাটি জেলা সভাপতি জনাব মোঃজাহাঙীর আলম, বিষেশ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পিবিসিপি জেলা সম্পাদক আব্দুল মান্নান, মোঃ আল আমিন, মোঃ মহিউদ্দিন, কলেজ শাখা সহ বিভিন্ন শাখার নেতৃবৃন্দ।

বাঘাইছড়ি উপজেলা চত্ত্বরে সকাল ১০ টায় শুরু হওয়া মানববন্ধন চলা কালে বক্তারা বলেন বর্তমান সরকার ১৯”” সালে শান্তি চুক্তি করেছিলো পাহাড়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা করার জন্য কিন্তুু অতি দুঃখের বিষয় হলো পাহাড়ে শান্তি তো দুরের কথা অশান্তির আগুনে এক এক করে তাজা প্রাণ পার্বত্য অস্ত্রধারি সন্ত্রাসীদের বুলেটের আঘাতে ঝরে যাচ্ছে।
শান্তি চুক্তির পরে পাহাড় থেকে সেনা ক্যাম্প প্রত্যাহার করার কারনে সন্তুু বাহিনির সন্ত্রাসীরা ব্রাশফায়ার করে আমাদের নিরিহ নিরস্ত্র ভাই বোন কে হত্যা করেছে। আমরা এই হত্যার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এবং সে দিন যারা নিহত হয়েছে তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং আহতদের সুস্থতার জন্য মহান আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ করছি।

বক্তারা আরো বলেন পাহাড়ের শান্তি বিনষ্টকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে, অন্যথায় পাহাড়ের যে কোন পরিস্থিতির জন্য দায়ভার প্রসাশনকে নিতে হবে।
মানববন্ধন এর আগে কাচালং কলেজ থেকে শোক র্যালি নিয়ে শহরের প্রধান প্রধান সরক প্রদক্ষিণ করে নেতা কর্মিরা। বক্তারা উক্ত মানববন্ধন থেকে বেশ কিছু দাবী তুলে ধরেন।

১. বাঘাইছড়ি হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সন্তু বাহিনীর সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার করে ফাঁসি দিতে হবে।

২. বাঘাইছড়ি হত্যাকান্ডে যারা নিহত হয়েছেন ৫০,০০,০০০ প্রত্যেক পরিবারকে ৫০,০০,০০০/-(পঞ্চাশ লক্ষ) টাকা করে ক্ষতিপূরণ এর দাবী করছি।

৩.সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্যা” বাসন্তী চাকমাকে” সংসদ সদস্য পদ থেকে অপসারণের দাবী জানাচ্ছি।

৪.আহতের পূর্নবাসনের জন্য সব ধরনের সুযোগ- সুবিধা ও আর্থিক সহযোগীতা দিতে হবে।

৫.প্রত্যাহারকৃত সেনাক্যাম্প পুনঃস্থাপন করতে হবে।

৬. অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও চাঁদাবাজি বন্ধ করে পার্বত্য অঞ্চলের স্থায়ি শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

৭. পার্বত্য চট্টগ্রামের বৈষম্যমূলক উপজাতীয় কোটা বাতিল করে বৈষম্যহীন পার্বত্য কোটা চালু করতে হবে।

৮. বাঘাইছড়ি -দিঘীনালা সরকের ৯ কিলো স্থানসহ ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে সেনাক্যাম্প স্থাপন করতে হবে।

৯. পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের ৮ দফা দাবী বাস্তবায়ন করতে হবে।