খুলনায় অতিরিক্ত মদপানে নারীসহ ৮ জনের মৃত্যু

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

অক্টোবর ১০ ২০১৯, ০০:৫৬

খুলনায় অতিরিক্ত মদপানে এক নারীসহ ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায়সহ বিভিন্ন স্থানে এদের মৃত্যু হয়।

মৃতরা হলেন, নগরীর গল্লামারী এলাকার নরেন্দ্র দাসের ছেলে প্রসেনজিৎ দাস (২৯) ও তাপস দাস (৩২), ভৈরব টাওয়ার এলাকার মানিক বিশ্বাসের ছেলে রাজু বিশ্বাস (২৫), গ্লাক্সোর মোড় এলাকার প্রদীপ শীলের ছেলে সজল শীল (২৬), নগরীর রায়পাড়া ক্রসরোডের বিমল শীলের ছেলে অমিত শীল (৪০) এবং রূপসা উপজেলার রাজাপুর গ্রামের পরিমল দাস (৩০), তার ভাতিজা দীপ্ত দাস (২২) এবং একই গ্রামের প্রবাসী সমীর বিশ্বাসের স্ত্রী ইন্দ্রানী বিশ্বাস (২৫)।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. আলমগীর, ডা. ওমর ফারুক ও ডা. মনোয়ার বলেন, বুধবার সকাল থেকে তারা কর্তব্যরত থাকা অবস্থায় অতিরিক্ত মদপানে অসুস্থ হয়ে ৫ ব্যক্তি হাসপাতালে আসেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে অমিত শীল মারা যান। খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. খালেদ মাহমুদ তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এছাড়া সন্ধ্যার দিকে গৃহবধূ ইন্দ্রানী বিশ্বাস, পরিমল দাস ও তার তার ভাতিজা দীপ্ত দাস মারা যান। রূপসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা জাকির হোসেন এ তিনজনের মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত করেন। চিকিৎসকরা জানান, অতিরিক্ত মদ পানের কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, গত মঙ্গলবার রাতে দুর্গাপূঁজার বিসর্জন উপলক্ষে উক্ত ব্যক্তিরা অতিরিক্ত মদ পান করেন। এতেই তাদের মৃত্যু হয়।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (ডিসি) এহশান শাহ বলেন, ধারণা করা হচ্ছে অতিরিক্ত মদ্যপান করে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

খুলনার সিভিল সার্জন ডা. এএসএম আব্দুর রাজ্জাক বলেন, অতিরিক্ত মদ পানের কারণে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি তিনজনের মৃত্যুর বিষয়টি তিনি জানেন না বলে জানান।

একুশে জার্নাল/ইএম