এবার অভিভাবকদের জন্য হিজাব নিষিদ্ধ করলো ফ্রান্স

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

নভেম্বর ০৪ ২০১৯, ১৩:৩৩

চলতি বছরের ১৬ মে ফ্রান্সের সংসদ অধিবেশনে স্কুল শিক্ষার্থীদের হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এমনকি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নারী শিক্ষার্থীদের হিজাব না পরাতে মা ও অভিভাবকদের নির্দেশনা দিয়েছিল ফ্রান্স।

এবার স্কুল শিক্ষার্থীদের নারী অভিভাবকদের মাথায় স্কার্ফ পরা নিষিদ্ধ করে আইন পাস করেছে দেশটির আইনসভা। এর ফলে শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে নারী অভিভাবকরাও মাথায় কোনো ধরনের স্কার্ফ বা হিজাব পরতে পারবে না।

ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলের শহর বেয়নের একটি মসজিদে এক সাবেক সেনা সদস্যের গুলিতে দুজন বৃদ্ধ গুরুতর আহত হওয়ার পর গত সোমবার এই আইনটি পাশ করা হয়। পর দিন মঙ্গলবার সিনেটে বিলটির পক্ষে ১৬৩ জন সিনেট সদস্য ভোট দেন। আর এর বিপক্ষে ভোট দেন ১১৪ জন।

ইউরোপের প্রথম দেশ ফ্রান্স, যেখানে আইন করে নারীদের বোরকাকে নিষিদ্ধ করা হয়। অথচ ৫০ লাখ মুসলমান ফ্রান্সে বসবাস করে আসছে।

২০১১ সালের এপ্রিলে ফ্রান্সে মুখ ঢাকা থাকে এ ধরনের সব পোশাক নিষিদ্ধ করা হয়। এর মধ্যে বোরকা ও নিকাব রয়েছে। এ আইনটিকে জরিমানার আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। যে কেউ মুখ মুখ ঢাকবে তাকে ১৫০ ইউরো জরিমানা গুনতে হবে।

চলতি বছরের মে মাসে স্কুলে মেয়ে শিক্ষার্থীদের হিজাব পরা নিষিদ্ধ করা হয়। আর এবার নিষিদ্ধ করা হলো মেয়ে শিক্ষার্থীদের নারী অভিভাবকরাও হিজাব পরে তাদের সন্তানদের স্কুলে আনা-নেয়া করতে পারবে না মর্মে আইন পাস করা হয়েছে।

স্কার্ফ পরা নিয়ে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রো বরেন, জনসম্মুখে স্কার্ফ পরা আমার কোনো বিষয় নয়। কিন্তু স্কুলে স্কার্ফ পরার ব্যাপারে আমি কথা বলতে চাই। কারণ, স্কুলে আমরা অসাম্প্রদায়িকতা শেখাই।