হারিয়ে খুঁজে ফেরা শৈশবের আস্ফালন 

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

আগস্ট ০৭ ২০২০, ১২:২৫

কনসিস্টেন্সি জিনিসটা নিজের ভেতর নেই বছর দুয়েক হয়ে গেল।ব্যাপারটা কেমন যেন হারিয়ে গেল।মেলায় হারিয়ে যাবার মত হুট করেই নেই।কেন যেন খুঁজতে গিয়েও খুঁজতে চাই না।বোধহয় খুঁজে পেতে চাইনা।তবে খুঁজে পেলে উপকার বৈ অপকার হত না….!!!

পড়াশুনা জিনিসটাই এখন খাপছাড়া।সেই কবে এক ডজন কলম আর একগাদা খাতা কেনা হয়েছে মনে নেই।আগে প্রয়োজনের কথা চিন্তা করে ব্যাবস্থা করা হত।আর এখন প্রয়োজন ছাড়া এসবের কথা মনেই থাকে না আর প্রয়োজনের কথা চিন্তা করা তো দূরের কথা…!!!

এখন আর আগের মত সেই উচ্ছ্বাস গুলো নেই।হারিয়ে খুঁজে ফিরি আজো।এভাবে সব কেন হারিয়ে যায় বুঝিনা।এরকম সময় গুলো তো কখনো চাইনি।সেই উল্লাসে ভরা জীবন,সেই ব্যাস্ত,ক্লান্ত,শ্রান্ত দিনগুলো।যে দিনগুলোকে খুব প্যারাময় মনে হলেও অজান্তেই যে সেগুলো আমাদের সেরা সময় ছিল তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।উচ্ছ্বাসের কথা ভাবলেই মনে আসে অন্য চিন্তা।কারন এখন যে সেই মানুষগুলো নেই যারা ছিল সবচেয়ে প্রিয়।জানি সে সময় আর কখনো ফরে আসবে না,তবুও না জানার ভান করে আছি।যদি অলৌকিক কিছু ঘটে সে আশায়…!!!

রাতজাগা গুলো এখন শুধুই নিছক ঘুম না আসার কারন।এখানে কোন মুক্তির আনন্দ নেই।রাতজাগায় নেই কোন আনন্দ।অথচ কত রাতই না পার হয়ে গিয়েছিল নির্ঘুম।কোন কষ্ট লাগেনি।বরং একটা চাপা ইচ্ছাশক্তির বলে সে রাতগুলো পার করে দিয়েছিলাম।আফসোস এখন আর কোন ইচ্ছা জাগ্রত হয় না।ইচ্ছাগুলো মনে হয় আমার অনিচ্ছা দেখেই ইচ্ছাকৃতভাবে লুকিয়ে আছে।আমার কাছে ধরা দিতে চায় না…!!!

রংতুলির আচড় এখন আর কাগজ এ বসে না।ওরাও বিরক্ত হয়ে গিয়েছে।পাঠ্যপুস্তক আজ সব কেড়ে নিয়েছে।পড়তে হবে নাহলে মুক্তির স্বাদ পাওয়া যাবে না…!!!

জীবন পড়ে আছে।প্রতিনিয়ত এবং ক্ষনে ক্ষনে জীবন তার রং পালটায়।সবকিছু কখনো একরকম থাকে না।একটা সময় চালচুলো হীন মানুষটাও জীবনের টানে জীবনের পথে নেমে পড়ে।সবকিছু একসময় ঠিক হয়ে যায়।কিন্তু তখন আর কিছুই করার থাকে না।কারন সময়মতো ঠিক না হলে পরে গিয়ে ঠিক হলে কার কি লাভ।তবুও একটা সময় সবাই ব্যাস্ত হয়ে পড়ে।কেউ তখন কারো না…!!!

দিনশেষে চার দেয়ালে বদ্ধ ঘরে বিছানায় শুয়ে যখন আপনি ভাবতে থাকেন তখন আপনি একা।আপনি কিন্তু তখন একা।দিনশেষে সবাই একা।আজকের দিনটি আর কখনো ফিরে পাবে না জেনেও আফসোস করে সবাই।তেমনি আমিও আফসোস করি।আগের সব যদি ফিরে পেতাম।ব্যাস্ততা আছে কিন্তু উচ্ছ্বসিত দিনগুলো নেই।এটাই বাস্তবতা…!!!

 

লেখক

এস এম নাজমুল হাসান অনিক

বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং 

৩য় বর্ষ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ।