স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিদ্রোহীদের বহিষ্কার করবে আ.লীগ

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

জুলাই ১৩ ২০১৯, ১৮:২৫

আওয়ামী লীগ উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী প্রার্থীদের সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। পাশাপাশি বিদ্রোহী প্রার্থীদের যেসব মন্ত্রী, এমপি এবং পদস্থ নেতা সমর্থন করেছিলেন তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হবে।

শুক্রবার (১২ জুলাই) আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে অংশ নেওয়া কার্যনির্বাহী সংসদের একাধিক নেতা এ তথ্য জানান।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবনে তার সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, কার্যনির্বাহী সংসদের গত বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সাংগঠনিক সম্পাদকরা নিজ নিজ বিভাগের বিদ্রোহী প্রার্থী এবং তাদের সমর্থনকারীদের তালিকা দলের শীর্ষ নেতাদের হাতে তুলে দেন। সব মিলিয়ে সমর্থনকারীর সংখ্যা ৬০ থেকে ৬৫ জন। আর বিদ্রোহী প্রার্থীদের তালিকা চলতি সপ্তাহেই চূড়ান্ত করা হবে।

আগামী ১৫ দিনের মধ্যেই বহিষ্কার এবং কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হবে। যারা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেছেন তাদেরকেও বহিষ্কার করা হবে।

সূত্র আরও জানায়, বৈঠকে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আগে সাময়িক বহিষ্কার করতে হবে। পরে কেন স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না, তা জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হবে।

তিনি আরও বলেন, দলের শৃঙ্খলা রক্ষায় যতোটা শক্ত সিদ্ধান্ত নিতে হয়, ততোটাই নেওয়া হবে।

বৈঠকে অংশ নেওয়া নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দলের দুই সিনিয়র নেতা আমির হোসেন আমু এবং তোফায়েল আহমেদ ধর্ষণের বিরুদ্ধে শক্ত আইন করার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য দেন।

দলের সভাপতি শেখ হাসিনা তাদের সঙ্গে একমত পোষণ করে বলেন, সরকার এ নিয়ে ভাবছে। এছাড়া  বৈঠকে শোকের মাস আগস্টের কর্মসূচি চূড়ান্ত করা হয় বলে জানা যায়।