শরয়ী পর্দা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের শামিল: মাও. নিজামপুরী

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

জুন ১১ ২০১৯, ২১:৪৯

সম্প্রতি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া বক্তব্য “হাত মোজা, পা মোজা, নাক-চোখ ঢেকে, একেবারে, এটা কী? জীবন্ত ট্যান্ট (তাবু) হয়ে ঘুরে বেড়ানো; এর তো কোনো মানে হয় না”। এমন বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন, হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশেের কেন্দ্রীয় সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক ও হাটহাজারী মাদরাসার মুহাদ্দিস মাও. আশরাফ আলী নিজামপুরী।

আজ ১১ ই জুন সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত এক বার্তায় মাও. নিজামপুরী বলেন, পর্দা ইসলামের ফরজ বিধান। হাত- মুখ ও পা ঢেকে রাখা পর্দার অন্তর্ভুক্ত।৯০% মুসলিম দেশের একজন রাষ্ট্র প্রধানের মুখে ইসলামের ফরজ বিধান নিয়ে এধরনের আপত্তিকর বক্তব্য দুঃখজনক। শরয়ী পর্দা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এ বক্তব্য ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের শামিল

হেফাজতের এই নেতা আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখে এধরণের দায়িত্বহীন কথা দেশের পরিবেশ ও নাস্তিকদের উস্কে দেওয়ার নামান্তর।
বর্তমান নারী নির্যাতন ও ইভটিজিং এর অভিশাপ থেকে বাঁচতে সবাই যখন নিত্য নতুন পন্থা অবলম্বনে ব্যস্ত তখন পর্দা নিয়ে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্য ধর্ষক ও ইভটিজারদের সাহস যোগানো ছাড়া কিছুই নয়।

মাও. নিজামপুরী আরো বলেন,নারী জাতির ইজ্জত আব্রু হেফাজত করতে হলে পর্দাকে কটাক্ষ না করে সর্বমহলে নারীদের জন্য শরয়ী পর্দা তথা শালীন পোষাককে বাধ্যতা মূলক করুন!

তিনি বলেন, ইসলামের ফরজ বিধান পর্দা নিয়ে এমন বক্তব্যে সর্বমহল ব্যথিত ও মর্মাহত হয়েছে। এসময় তিনি পর্দাকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে এমন বক্তব্য প্রত্যাহার করার আহবান জানান।