লক্ষ্মীপুর আটিয়াতলীতে ইমামের উপর হামলাকারীকে গ্রেফতারের দাবীতে এলাকায় সমাবেশ

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

ফেব্রুয়ারি ২৬ ২০২২, ১১:৪০

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ১১ নং ওয়ার্ড আটিয়াতলীতে মাওলানা আবু নাইম ওসমান নামে এক মসজিদের ইমামের উপর হামলকারী বখাটে মো: রকিকে গ্রেফতারের দাবীতে শুক্রবার বিকেলে এলাকায় প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে এলাকাবাসী।

স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ে আয়োজিত সমাবেশে এলাকায় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ ও সাংবাদিকেরা উপস্থিত ছিলেন। সমাবেশে আবু বকর ছিদ্দিক জামে মসজিদ এর ইমাম মাওলানা আবু নাইম ওসমান বলেন একই এলাকার মৃত হাবিব উল্যার পুত্র মো: রকি ও তার ভাই মনোয়ার হোসেন বৃহস্পতিবার বিকেলে সাবেক কাউন্সিলর মো: আরিফের বাড়ির সামনে তার উপর হামলা চালিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন সম্প্রতি তিনি মসজিদে মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে মাদকের কুফল নিয়ে আলোচনা করেন এবং সমাজ থেকে মাদক নির্মূলে সকলকে সোচ্ছার হওয়ার আহবান জানান। এর পর থেকে বখাটে রকি তাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে এবং এলাকা থেকে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়।

তার কথা রাজি না হওয়ায় সেই তার ভাইকে নিয়ে তার উপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় সদর থানায় ২ ভাইকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ দায়ের করার পর থেকে রকি আরও বেপরোয়া হয়ে শুক্রবার সকালে তার বাড়ি গিয়ে তাকে হুমকি দিয়ে আসে। অবিলম্বে রকি গ্রেফতার না করলে তিনি প্রাণ ভয়ে আছেন বলে জানান তিনি।

এ দিকে এলাকাবাসী জানান, রকি একজন মাদকসেবী ও ব্যবসায়ী তার বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। সম্প্রতি সেই ও তার ভাই এসিড নিক্ষেপ মামলায় কারাগারে ছিলেন। কারাগার থেকে বের হয়ে সেই এলাকায় মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত। কোরআন ও ইসলামী বিরোধী বক্তব্যে দিয়ে এলাকায় বিভিন্ন মসজিদের ইমাম ও খতিবদের লক্ষ্য হামলা ও হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে।

ইতিমধ্যে এলাকায় ১১ বর্তমান ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুর রহমান আরিফের বাড়ির দরজায় মক্তবের ইমাম খোরশেদ আলমের উপর হামলা করে। তার হামলার স্বীকার হয়ে একই এলাকার খাসের বাড়ির মসজিদের ইমাম মো: আবদুল্লাহ এলাকায় ছেড়ে চলে যায়।

মোহাম্মদীয়া জামে মসজিদের ইমাম মো: মাহমুদুল ইসলাম কে রাতে মোবাইলে ফোন দিয়ে এলাকা ছেড়ে চলে নির্দেশ দেয় তার কথা না শুনলে প্রকাশ্যে হামলার করার হুমকি দেয়। একই এলাকার দুদু মিয়া মসজিদের ইমাম রুহুল আমিন রকির অত্যাচারে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। লক্ষ্মীপুর কারাগারের জেল খানার ইমাম হোসাইন আহমেদ ধর্মীয় বিরোধী বিভিন্ন প্রশ্ন করে এলাকায় ধমীয় কর্মকান্ড না চালাতে নির্দেশ দেয়। একই ধরনের অভিযোগ করেন জেল খানা মসজিদের খতিব হোসেন কবির।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুর রহমান আলমগীর বলেন, রকি এলাকায় বিভিন্ন মসজিদের ইমামদের উপর হামলা করে। সেই ইসলাম ও ধর্মীয় বিরোধী মন্তব্য করে। তার বিরুদ্ধে মাদক মামলা রয়েছে। গতকাল মাওলানা আবু নাইম ওসমান নামে ইমামের উপর হামলা করে। তার হামলা ও হুমকির কারনে এলাকা থেকে ৩ ইমাম চলে গেছে। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের নিকট জোর দাবী জানাই।

এ দিকে থানা সূত্রে জানা যায় অভিযোগটি আমলে নিয়ে শহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম কে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে মোবাইল ফোন কল করেও এস আই জহিরুল ইসলামের মতামত নেওয়া সম্ভব হয়নি।