রাজধানীর শাহবাগে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ৭ দফা দাবি আদায়ে অবস্থান কর্মসূচি পালিত

Mahbubur Rahman

Mahbubur Rahman

ফেব্রুয়ারি ২৪ ২০২১, ২২:৪৯

নিজস্ব প্রতিনিধি:

সরকারি সহ সব চাকরিতে ৩০ শতাংশ কোটাসহ সাত দফা দাবিতে রাজধানীর শাহবাগে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদ অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে এ এ অবস্থান কর্মসূচি শুরু হয়। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদের সাত দফা দাবি গুলো হলোঃ

১. চাকরির সব পদে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুর্নবহাল করতে হবে।

২. সাংবিধানিক স্বীকৃতি ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সুরক্ষা আইন পাশ করে মর্যাদা নির্ধারণ করতে হবে।

৩. মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নির্বাচনে শহীদ, মৃত ও অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের একজন প্রতিনিধিকে ভোটার করতে হবে।

৪. বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযোদ্ধাদের অপমান মেনে নেয়া হবে না। মুজিব কোটের সম্মান রক্ষায় সিনেমা, সিরিয়াল ও নাটকের মন্দ চরিত্রে মুজিব কোট পরা নিষিদ্ধ করাসহ মন্দ লোকেরা মুজিব কোট পরতে পারবে না, এই মর্মে আইন পাস করতে হবে।

৫.  মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের পরিত্যক্ত সম্পত্তি দখলমুক্ত করে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর করতে হবে।

৬. টাঙ্গাইলে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ ও আব্দুল লতিফ খান , বীরের সন্তান মেজর সিনহা ও এএসপি আনিসুল করিম শিপনকে পরিকল্পিত খুনের বিচারসহ সমগ্র দেশে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ওপর হামলা-নির্যাতন, জমি দখলের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে। দুর্নীতি, মাদক, ধর্ষণের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখাসহ আইন প্রণয়ন ও নিত্য পণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণ রাখতে হবে।

৭. হাসপাতাল, সরকারি অফিস, বিমান বন্দরসহ সবক্ষেত্রে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ভিআইপি মর্যাদা দিতে হবে।

প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব মো. শফিকুল ইসলাম বাবুর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় নেতা মো. মাসুদ, মো. মিজানুর রহমান সাগর, আবিদ হাসান, মাসুম বিল্লাহ, হামিদা ইসলাম, রজত কান্তি, বিউটি আক্তার, সুকান্ত ভট্টাচার্য প্রমুখ।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ফরিদপুর থেকে আগত বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ডা. হাফেজ মাওলানা মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ইসলামে দেশপ্রেমকে ঈমানের অংশ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। তাই আমাদের প্রত্যেকেরই উচিত দেশকে আন্তরিক ভাবে ভালোবাসা। সবসময় দেশের কল্যাণে নিজেদেরকে নিয়োজিত রাখতে চেষ্টা করা।

তিনি আরো বলেন, উপজেলা জেলা তথা সারা বাংলাদেশের সকল বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ৩০% কোটাসহ ৭ দফা দাবি আমাদের আদায় হবেই হবে, ইনশাআল্লাহ।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন মহাসচিব মো. মিজানুর রহমান সাগর তার বক্তব্যে বলেন, যাদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে এ দেশ স্বাধীন হয়েছে জাতীর সেই বীরশ্রেষ্ট সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবদানের কথা বিবেচনা করে তাদের সন্তানদের জন্য হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেয়া ৩০% কোটা কেহ তুলে নিতে পারেন না। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, জাতির জনকের দেওয়া মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের ৩০% কোটা পূর্ণবহালসহ ৭দফা দাবি মেনে নেওয়ার আহবান জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদ কমান্ডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো. সোলায়মান মিয়া এ প্রতিবেদককে বলেন, বাংলাদেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে হলে দেশের প্রতিটি অফিসে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদেরকে নিয়োগ দিতে হবে। সরকারী চাকরী সহ সকল চাকরীতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদেরকে ৩০% কোটা পুর্নবহাল করতে হবে। এটা আমাদের প্রাপ্য। তাই আমাদের দাবি মেনে না নেয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। আমি কোটা সহ ৭ দফা দাবি মেনে নিতে সরকারেরব প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য: অবস্থান কর্মসূচিতে আজ বিকেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা, বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্মের উপর পুলিশ লাঠিচার্জ ও জলকামান নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত সহ প্রায় শতাধিক আহত হয়।