মাধবপুরে করোনা প্রতিরোধে চা শ্রমিকদের মধ্যে নেই সচেতনতা

শেখ জাহান রনি, মাধবপুর প্রতিনিধি প্রতিনিধি ”: হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার বৈকন্ঠপুর চা বাগান যেখানে ৫ হাজার লোক আছে । ৫ হাজার চা শ্রমিক করোনাভাইরাস আতঙ্কে আছে। নিম্ন আয়ের এসব চা শ্রমিকদের ঝুঁকি মোকাবিলায় এখনো নেওয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা। এই উপজেলার কোনো চা বাগানেই এখনো দেখা যায়নি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের প্রস্তুতি। নেই সচেতনতামূলত কোনো কর্মসূচি। তাদের সতর্ক করে জারি করা হয়নি কোনো সচেতনতা। মাধবপুর উপজেলার বৈকন্ঠপুর ৫ হাজার চা- শ্রমিক রয়েছে। তাদের মাত্র এক-তৃতীয়াংশ চা শ্রমিক বাগানে কাজ করে। বাকিরা চা বাগানের বাইরে দিনমজুরের কাজ করে। সকালে কাজের সন্ধানে বের হয়, সারা দিন কাজ করে সন্ধায় বাড়ি ফিরে। তাদের এ বিষয়ে সচেতন হওয়ার সময়ই কোথায়। এদিকে চায়ের মৌসুম শুরু। এ অবস্থায় সারাদেশ যখন করোনাভাইরাস আতঙ্কে নানা সচেতনতামূলক কাজ চলছে সেখানে চা বাগানে নেই কোনো প্রস্তুতি। বিশেষ করে চা বাগানের পরিবারগুলো অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ। ফলে যে কেউ একবার করোনা আক্রান্ত হলে তা সহজেই ছড়িয়ে পড়বে চা বাগানের বিভিন্ন লাইনে। এ অবস্থায় এখনই চা বাগানে সতর্কতামূলক বিভিন্ন সচেতনতা লিফলেট ও চা শ্রমিকদের রক্ষায় ঘরে ঘরে হাত ধুয়ার স্যানিটাইজার ও সাবান বিতরণ করার দাবি জানিয়েছেন অনেকেই।

চা শ্রমিকদের করোনাভাইরাস থেকে দূরে রাখতে তাদের এখনই সচেতনতামূলক কাজ শুরু করা প্রয়োজন। পাশাপাশি তাদের মধ্যে বিনামূল্যে মাস্ক দেওয়া প্রয়োজন। চা শ্রমিকরা দৈনিক আমার হবিগঞ্জ কে জানায়, তারা করোনাভাইরাস কি তা জানে না। তারা দিন আনে দিন খায়, তাদের একদিন কাজ না করলে পেটে ভাত যাবে না। তাই তাদের এখনই আলাদাভাবে সচেতনতার জন্য বাগানের ম্যানেজারদের নিয়ে জরুরিভাবে প্রদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।