বেআক্কেলের মতো কাজ করেছি; মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

ডিসেম্বর ২৭ ২০১৯, ১৮:২৮

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে রাজাকারদের যে তালিকা পেয়েছি সেটি যাচাই না করে প্রকাশ করায় বেআক্কেলের মতো কাজ করেছি। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নওগাঁর ১১টি উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট ও সঠিক ইতিহাস এবং সারা দেশের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে থাকা মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি সংরক্ষণ করে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে তা তুলে ধরতে হবে। সেটি না করলে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস মুছে যাবে।

তিনি আরও বলেন, ‘২০২০ সালের জানুয়ারি মাসেই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। তালিকার কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। এখন সেটি যাচাইয়ের কাজ চলছে। ২০২০ সালের ২৬ মার্চের মধ্যে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের ছবিসহ পরিচয়পত্র প্রদান করা হবে। দেশে সর্বপ্রথম আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতার ব্যবস্থা করে। ’

নওগাঁর জেলা প্রশাসক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহ্বায়ক মো. হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন নওগাঁ-২ আসনের সাংসদ শহিদুজ্জামান সরকার, নওগাঁ-৩ আসনের সাংসদ ছলিমউদ্দিন তরফদার, নওগাঁর পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া ও মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক আবদুল হাকিম। নওগাঁয় ১১টি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন তৈরিতে ২৪ কোটি ১ লাখ ৭৪ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে।