বাহুবলে গ্রাম্য হাঁটবাজারে জনসমাগমের জটলা রোধে নেই প্রশাসনের অভিযান

শাহ মোহাম্মদ দুলাল আহমেদ, বাহুবল(হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: যতই দিন যাচ্ছে, ঠিক ততই বাংলাদেশে করোনাভাইরাস বিস্তার লাভ করে যাচ্ছে।

এ ভাইরাস রোধে সারা দেশে সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য কড়া নির্দেশনা সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় থানা, উপজেলা, জেলায় জনপ্রশাসন, আইনশৃঙ্খলাবাহিনী কঠোর সাঁড়াশি অভিযানের দৃশ্য দেখা গিয়েছে। এমনকি গতকাল থেকে সারা দেশে একযোগে যৌথ বাহিনী মাঠে নেমেছে।

জনপ্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনের কড়া অভিযানে জেলা, উপজেলার অন্তর্ভুক্ত শহরগুলো জনশূন্যের দৃশ্য বাস্তবায়িত হলেও উক্ত উপজেলার গ্রাম্য হাট-বাজারের দৃশ্য দেখা গেছে ভিন্ন।

বাহুবল উপজেলার গ্রাম্য হাট-বাজারে জনসমাগম রোধে নেই প্রশাসনের অভিযান। এসব বাজারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনা থাকলেও সরোজমিনে গিয়ে দেখা গেছে প্রায় সকল দোকান‌ই খোলা।

যদিও ইতিমধ্যে বাহুবল উপজেলা প্রশাসন থেকে বারবার সচেতনতামূলক নির্দেশ জারি করা হয়েছে যে, করোনাভাইরাস রোধে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। হাট-বাজারে জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে। সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। মুখে মাক্স ব্যবহার করতে হবে। এটি ছোঁয়াচে ভাইরাস। একজন থেকে অন্যজনের মধ্যে অতি দ্রুত ছড়িয়ে যেতে সক্ষম।

সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে প্রশাসন মাঠপর্যায়ে কিছু কাজ করলেও গ্রামগঞ্জের প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রশাসনিক অভিযান চোখে পড়েনি। ফলে গ্রামের লোকজন পূর্বের তুলনায় বাজারে ঘুরাফেরা করছে।দেখা গেছে বিভিন্ন হাট-বাজারে চায়ের দোকানে বসে আড্ডার দৃশ্য!

স্থানীয় গোসাইবাজারে জনসমাগম স্থলের দৃশ্য স্পষ্টতা পায় বিকাল সাড়ে ছয় ঘটিকায়। প্রায় হাজার খানেক মানুষের সমাগম ঘটে উক্ত গ্রাম্য বাজারে।

অথচ অভিজ্ঞরা বলছেন, এমন কর্মকাণ্ড এ ভাইরাস থেকে মুক্তির পথ নয়, বরং নভেল ১৯ করোনাভাইরাসকে নিজের গায়ে জড়িয়ে নেয়ার নামান্তর।

উল্লেখ্য, মহামারী রূপ নেয়া করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গ্রাম পর্যায়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে স্থানীয় প্রশাসন গ্রামের হাট-বাজারে অভিযান পরিচালনার জন্য এগিয়ে আসতে হবে।