প্রেমিকের দাওয়াতে গিয়ে তরুণীসহ ৬ দাখিল পরীক্ষার্থী অপহৃত

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

ফেব্রুয়ারি ১৩ ২০১৯, ০২:৪৪

পরীক্ষা দিতে এসে সম্পর্ক হওয়া প্রেমিকের দেয়া দাওয়াতে গিয়ে অপহরণের শিকার হয়েছেন ছয় দাখিল পরীক্ষার্থীসহ আটজন। তাদের মাঝে শিশুসহ ছয়জন উদ্ধার হলেও কথিত প্রেমিকাসহ আরও এক তরুণী গভীর রাত পর্যন্ত নিখোঁজ ছিলেন।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকা আছাদতলী নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

নিখোঁজদের উদ্ধারে গভীর রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে সর্বশেষ কথিত প্রেমিকা কলি আক্তারসহ অপর নিখোঁজকেও জনতার সহায়তায় পুলিশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মহেশখালী থানার ওসি প্রভাস চন্দ্র ধর।

তিনি জানান, শাপলাপুর আলিম মাদ্রাসার ছয় দাখিল পরীক্ষার্থী মহেশখালী পৌরসভার বানিয়ার দোকান এলাকায় ভাড়াবাসায় থেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এই ছয় শিক্ষার্থীর মধ্যে কলি আক্তার ও অজ্ঞাতনামা এক পরীক্ষার্থীর সঙ্গে ছোট মহেশখালীর আজম নামের একজনসহ দুই ছেলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

সম্পর্কের সুবাদে প্রেমিকদের অনুরোধে মঙ্গলবার দাওয়াত খেতে যায় তারা। ছয় পরীক্ষার্থী, তাদের বাসার মালিক পারভিন ও তার শিশু ছেলেসহ আটজন রাত ৮টার দিকে ছোট মহেশখালীর আছাদতলী নামক পাহাড়ি এলাকায় যায়।

কথিত প্রেমিকসহ কয়েকজন যুবক তাদের পাহাড়ের ভেতর নিয়ে যেতে চাইলে কয়েকজন ছাত্রী আতঙ্কে চিৎকার দিয়ে ওঠে। চিৎকারের শব্দ পেয়ে স্থানীয় লোকজন চেয়ারম্যানের সহায়তায় পাঁচ ছাত্রী ও শিশুটিসহ ছয়জনকে উদ্ধার করলেও কথিত প্রেমিকাসহ অপর একজনকে পাহাড়ের দিকে নিয়ে যায় অপহরণকারীরা।

অপর একটি সূত্র জানায়, কথিত প্রেমিকা কলি আক্তার প্রেমিক আজমের সঙ্গে উধাও হয়ে গেছে।

মহেশখালী থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর রাত ১২টার দিকে জানান, নিখোঁজদের উদ্ধারে রাতে পাহাড়ে স্থানীয়দের সহায়তায় অভিযান অব্যাহত রাখা হয়। পরিশেষে নিখোঁজ দুজনকেও পাহাড়ের ভেতর পাওয়া যায়। কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। উদ্ধারকৃতদের থানায় রেখে তাদের অভিভাবকদের ডেকে পাঠানো হয়েছে।