প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমান আমৃত্যু খেলাফত প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন

একুশে জার্নাল2

একুশে জার্নাল2

জুলাই ১৩ ২০১৯, ২১:২৬

একুশে জার্নাল ডেস্ক: আজ বিকালে গুলিস্তান কাজী বশির মিলনায়তনে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের উদ্যোগে সংগঠনের সাবেক আমীর প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবীবুর রহমান রহ. এর স্মরণে অনুষ্ঠিত জাতীয় কনফারেন্সে নেতৃবৃন্দ বলেন, তিনি নাস্তিক মুরতাদদের বিরুদ্ধে সিলেট থেকে আন্দোলন শুরু করলেও সে আন্দোলন পরবর্তীতে জাতীয় আন্দোলনে রূপ নিয়েছে। এ আন্দোলনের মাধ্যমে তসলিমা নাসরিন দেশ থেকে পালাতে বাধ্য হয়েছে। তিনি আপস না করায় জেল-জুলুমের শিকার হতে হয়েছে। আমীরে মজলিস শায়খুল হাদীস আল্লামা ইসমাঈল নূপুরীরর সভাপতিত্বে কনফারেন্সে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় অভিভাবক পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি শায়খুল হাদীস আল্লামা আশরাফ আলী।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, দলের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ ও মাওলানা আতাউল্লাহ আমীনের পরিচালনায় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবি ও অর্থনীতিবিদ প্রফেসর ড. মাহবুব উল্লাহ, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ (বেফাক) এর মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামী, সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদরুদ্দীন আহমদ কামরান, মধুপুরের পীর মাওলানা আব্দুল হামীদ, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ (বেফাক) এর মহাপরিচালক মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী, সিলেট দরগাহ মাদরাসার মুহতামিম শায়খুল হাদীস মাওলানা মুহিব্বুল হক গাছবাড়ি, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এম ডি জাকির হোসেন, প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবীবুর রহমান রহ. এর সাহেবজাদা মাওলানা সামিউর রহমান মুসা। কনফারেন্সে আরো বক্তব্য রাখেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা রেজাউল করিম জালালী, মাওলানা খুরশিদ আলম কাসেমী, মাওলানা আলী উসমান, সাবেক মহাসচিব মাওলানা ইউসুফ আশরাফ, যুগ্ম-মহাসচিব শায়খুল হাদীস মাওলানা মামুনুল হক, মাওলানা কোরবান আলী কাসেমী, মাওলানা আব্দুল আজিজ, মুফতি শরাফত হোসাইন, বেফাকের যুগ্ম মহাসচিব মুফতি নুরুল আমিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, ড. জি এম মেহেরুল্লাহ, মাওলানা এনামুল হক মূসা, বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা মাহবুবুল হক, সহ-বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা নিয়ামাতুল্লাহ, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা মুহসিনুল হাসান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ ফয়সাল, নির্বাহী সদস্য মুহাম্মদ আব্দুর রহীম, ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা রুহুল আমীন খান, ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ আতাউল্লাহ হোসাইনী প্রমুখ।
করফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাওলানা আশরাফ আলী বলেন, প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবীবুর রহমান রহ. ছিলেন একজন হক্কানী আলেমেদ্বীন তিনি আমৃত্যু খেলাফত প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে গেছেন। ইসলামের জন্য তার অবদান সোনালী হরফে লেখা থাকবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান খান কামাল তার বক্তব্যে বলেন, আলেম-ওলামারা যদি সরকারকে সহযোগিতা করে তাহলে দেশ আরও সুন্দরভাবে পরিচালিত হবে। ইসলাম শান্তির ধর্ম আমরা ইসলামকে হৃদয়ে ধারণ করি। তিনি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আলেম সমাজের ভূমিকার ভূয়সি প্রসংশা করেন। তিনি আরও বলেন, প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবীবুর রহমান সারা জীবন ইসলামকে এগিয়ে নেয়ার প্রচেষ্টায় নিয়োজিত ছিলেন।
বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী ড. মাহবুব উল্লাহ বলেন, প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবীবুর রহমানের আদর্শ আমাদের ধারণ করতে হবে। আমাদের সৌভাগ্য এইযে, আমরা একজন প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমান পেয়েছিলাম। তার শেষ রাতে জায়নামাজের কান্নার আমল আমাদের ধারণ করতে হবে।
স্বাগত বক্তব্যে সংগঠনের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, দেশে খুন ধর্ষণ নিয়ন্ত্রণহীনভাবে বেড়েই চলছে। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে সরকারকেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। তিনি ভারতে গণহারে মুসলমানদের নির্যাতন ও হত্যার বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে আমীরে মজলিস শাইখুল হাদীস আল্লামা ইসমাঈল নূরপুরী বলেন, প্রিন্সিপাল রহ. আমাদের মাঝে নেই কিন্তু তার আদর্শ বেঁচে আছে। সারা দেশের সকল কর্মীকে এ আদর্শ ধারণ করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি আরও বলেন সারা পৃথিবীতে আজ আশান্তির দাবানল জ¦লছে। বিশ^ মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে হবে।