চীন নাগরিকদের অদ্ভুত খাদ্যাভ্যাস ও করোনাভাইরাস

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

জানুয়ারি ২৮ ২০২০, ১৮:১৮

মুহাম্মাদ মাহবুবুল হক

ইসলাম মানুষের কল্যাণে জীবন বিধান দিয়েছে। স্বভাবজাত ও প্রকৃতির ধর্ম ইসলাম। বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আতঙ্কে সবাই।চীনের উহান শহরে এই সংক্রামক ব্যাধি মহামারী আকার ধারণ করছে। চীনাদের অদ্ভুত ও বিচিত্র খাদ্যাভাস থেকে করোনাভাইরাসের সূত্রপাত হতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

অমুসলিম চীনাদের ব্যাপারে হালাল-হারামের প্রশ্ন না থাকলে ও তাদের খাদ্য তালিকার অনেককিছুই ইসলামের দৃষ্টিতে হারাম।ইসলামের খাদ্যনীতিতে উপকারিতা ও স্বাস্থ্যের সুরক্ষা রয়েছে।ইসলামে হিংস্র ও ক্ষতিকর প্রাণী খাওয়া হালাল নয়।প্রাণীর স্বভাব মানুষের মধ্যে সংক্রমন হয়।ইসলাম মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী ও মানবদেহের কল্যাণকর খাদ্য খেতে বলে।

অনলাইন ঘেটে দেখলাম চীনাদের অদ্ভুত রকমের রুচি ও আমাদের কাছে ঘৃণার সব খাবার তাদের প্রিয় তালিকায়।

কীভাবে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয় বিশেষজ্ঞরা নিশ্চিত করতে পারেননি এখনো। তবে তাদের ধারণা, মানুষের দেহে এ রোগ এসেছে কোনো প্রাণী থেকে। তারপর মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়েছে উহান শহরে। তবে তাদের বাজারে মুরগি, বাদুড়, খরগোশ, সাপসহ বিভিন্ন বন্যপ্রাণী পাওয়া যায়, যেগুলোর মাধ্যমে করোনাভাইরাস মানুষের দেহে আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গবেষকরা বলছেন, ঘোড়ারনাল বাদুড়ের মধ্যে পাওয়া যায় এরকম একটি করোনাভাইরাসের সঙ্গে এই নভেল করোনাভাইরাসের মিল পাওয়া যায়। তবে উহানের ওই বাজারে জ্যান্ত মুরগি, বাদুড়, খরগোশ, এবং সাপ বিক্রি হতো। হয়তো এগুলোর কোন একটি থেকে এই নতুন ভাইরাস এসে থাকতে পারে। সার্স ভাইরাস প্রথমে বাদুড় এবং পরে ভোঁদড়ের মাধ্যমে মানুষের দেহে ছড়িয়েছিল। আর মার্স ছড়িয়েছিল উট থেকে। বিবিসির প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া যায়।

চীনাদের বিচিত্র খাদ্যাভাস

চীনাদের খাবারের মধ্যে অন্যতম প্রিয় খাবার হলো টুনা মাছের চোখ,ভেড়ার পুরুষাঙ্গ, পাখির উচ্চপ্রোটিন সম্পন্ন পাখির বাসার স্যুপ,মুরগীর অন্ডকোষ,মুরগীর অন্ডকোষ চাইনিজ খাদ্যাভ্যাসের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় একটি খাবার। হাঁসের ডিমের মধ্যে বড় হওয়া সেদ্ধ ভ্রূণ।

শতদিন পুরোনো ডিম, সাপের স্যুপ, ডুবো তেলে ভাজা বিশাল মাকড়সা, জীবন্ত ব্যাঙ, কাঁকড়া, শামুক, ঝিঁনুক, পোকামাকড়, এমনকি পোকামাকড়ের ডিমও। মুরগীর রক্ত দিয়ে তৈরি পুডিং। মুরগীর সিদ্ধ পা, ঝুটি, ঠোটসহ মাথা, নাড়িভূড়ি । আমরা যেগুলো ফেলে দেই, সেগুলো এরা মজা করে খায়। পর্ক, হাম, রিব অর্থাৎ শুকরের মাথা থেকে পা পর্যন্ত সবই এদের খাদ্য তালিকায় কমন। কুকুরের মাংসও খায়।