কুয়েতে দণ্ডপ্রাপ্ত পাপুলের সংসদ পদ বাতিল

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

ফেব্রুয়ারি ২২ ২০২১, ২০:২৩

অর্থ এবং মানব পাচারের অভিযোগে কুয়েতে দণ্ডিত লক্ষ্মীপুর-২ আসনের এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের সংসদ সদস্য পদ শূন্য ঘোষণা।

এ বিষয়ে সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সংসদ সচিবালয়। জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয় কুয়েতে ফৌজদারী অপরাধে ৪ বছরের সাজা হওয়ায় সংবিধান অনুযায়ী সংসদ সদস্য পদে থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন পাপুল। কুয়েতে রায় ঘোষণার দিন থেকেই তার পদ শূন্য হয়েছে বলে জানানো হয় প্রজ্ঞাপনে।

আরো পড়ুন: অর্থ ও মানবপাচারের দায়ে কুয়েতে এমপি পাপুলের ৪ বছরের কারাদণ্ড

গত ২৮শে জানুয়ারি এমপি পাপুলের ৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয় কুয়েতের একটি আদালত। পাশপাশি জরিমানা করা হয় ৫৩ কোটি ২১ লাখ টাকা। কুয়েতের আদালতের রায়ের কপি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে গত বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছায়।

আরবি ও ইংরেজিতে লেখা ৬১ পৃষ্ঠার রায়ের কপি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের স্পিকারের দফতরে ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। সংবিধান, কার্যপ্রণালি বিধি ও আইন অনুযায়ী এখন তার আর সংসদ সদস্য পদ নেই।

বাংলাদেশের ইতিহাসে তিনি প্রথম এমপি যিনি বিদেশে আটক ও ফৌজদারি অপরাধে দণ্ডিত হওয়ার পর পদ হারালেন।

এর আগে, এমপি পাপুলকে মানবপাচার, অর্থপাচার ও অবৈধ ঘুষের মামলায় গত ৬ জুন কুয়েতের নিজ বাসা থেকে আটক করা হয়। পাপুলের অবৈধ কাজে সহায়তা করায়, ২৮ জানুয়ারি কুয়েতের ফৌজধারী আদালত দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিবসহ দুই স্থানীয় নাগরিকে চার বছরের কারাদণ্ড ও ৫২ কোটি ৭৭ লাখ ৬৩ হাজার টাকা অর্থ জরিমানা করে।

কুয়েতে পাচারের শিকার পাঁচ বাংলাদেশির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পাপুলের বিরুদ্ধে মানবপাচার, অর্থপাচার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের শোষণের মামলা হয়। এরপর ১৭ দিন তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে কুয়েতি প্রসিকিউশন।

কুয়েতের দুই সংসদ সদস্যের সহায়তায় এবং কুয়েতি কর্মকর্তাদের সহায়তায় অনৈতিক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যান বলে কুয়েতি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।