কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলে ভুট্টার বাম্পার ফলন, লাভের আশায় কৃষকরা

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

ফেব্রুয়ারি ২৩ ২০২২, ১২:২৫

রোকন সরকার, কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামে ধরলা ও ব্রহ্মপুত্র নদের অববাহিকার চরগুলোতে কৃষকরা এবার ভুট্টা চাষ করেছেন।যেদিকে চোখ যায় সেদিকেই এখন সবুজের সমারোহ।বিগত বছরগুলোর চেয়ে এবছর কৃষকরা এ চাষ করেছেন বেশি।চরের বাসিন্দারা সনাতনী ফসল আবাদের পাশাপাশি এখন বাড়তি আয়ের জন্য ঝুঁকেছেন অর্থকরী ফসল ভুট্টার দিকে। আগাম জাতের এসব ভুট্টা চাষে পোকার আক্রমণ এবং রোগবালাই কম হওয়ায় চরের এসব কৃষকরা আগ্রহী বেশি।ভুট্টার আবাদের গাছের সবুজ চারা দেখে মন ভরে যায় কৃষকদের।

চরের বুক চিরে সবুজের সমারো প্রকৃতিকে চিরসবুজ করে তুলেছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায়,এ মৌসুমে জেলার ৯ উপজেলার ১৩হাজার হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে আগাম ১২ হাজার ৬শ ৫০ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ইতোমধ্যেই হয়েছে। বিভিন্ন চরাঞ্চলের কৃষকরা জানান, স্বল্প পরিশ্রম ও কম খরচে ভুট্টা চাষ বেশ লাভজনক।তাই ভুট্টা চাষে দিনদিন আগ্রহ বাড়ছে তাদের। প্রতি শতক জমিতে প্রায় ২ মন ভুট্টা উৎপাদিত হয়। এতে উৎপাদন খরচের চেয়ে দ্বিগুন লাভ হওয়ায় কৃষকদের মনোযোগ বেড়েছে এ চাষে।

কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মোঃ আব্দুর রশীদ জানান, এ জেলার চরাঞ্চলসহ মাটি ভুট্টা চাষে খুবই উপযোগী। এছাড়াও এ চাষে খরচ কম লাভ প্রচুর।প্রতি বিঘায় খরচ হয় ৬ থেকে ৮ হাজার টাকা কিন্তু বিঘা প্রতি ফলন হয় ৩৩-৩৪ মণ ভুট্টা যা বিক্রি হয় ১৬ থেকে ১৭ হাজার টাকায়। খরচ বাদে লাভ হয় ১০-১১ হাজার টাকা পর্যন্ত।

তিনি আরো বলেন, কৃষকদের রীতিমত পরামর্শ দিচ্ছি আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবার ভুট্টার ভালো ফলন হবে বলে আশা করি।