করোনা সংক্রমণ কমছে না কুড়িগ্রামে, সংক্রমণের হার ৫১.৩০ শতাংশ 

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

জুলাই ০৭ ২০২১, ২০:২০

রোকন সরকার, কুড়িগ্রাম: উত্তরের সীমান্তবর্তী জেলা কুড়িগ্রামে এখনও দাপট দেখাচ্ছে করোনা। গত ২৪ ঘন্টায় ১১৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৯ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু হয়েছে ২ জনের । শনাক্ত বিবেচনায় সংক্রমনের হার ৫১ দশমিক ৩০ শতাংশ।

এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত দাড়ালো ২ হাজার ৭৪ জনে। মৃত্যু হয়েছে ৩৩ জন করোনা আক্রান্তের।

লকডাউন বাস্তবায়নে কুড়িগ্রামে জেলা ও উপজেলা শহরগুলোতে প্রশাসনের কড়াকড়ি থাকলেও গ্রামাঞ্চলগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানতে ঢিলেমি লক্ষ্য করা গেছে। ফলে করোনা সংক্রমণের ভীতি কাটছে না সচেতন নাগরিকদের।

কুড়িগ্রাম স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, আজ বুধবার পর্যন্ত কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে করোনা রোগী ভর্তি ছিল ৩৯ জন। অর্থাৎ ২৮৮জন হোম আইসোলেশনে। এরমধ্যে কুড়িগ্রাম সদরের রোগী ২২৬জন। নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন ২০২জন এবং জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ২৪জন।

তবে কুড়িগ্রাম ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে আইসিইউ সুবিধা না থাকায় সংক্রমন বাড়লেও কাঙ্ক্ষিত চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে করোনা আক্রান্ত রোগীরা।

সিভিল সার্জন ডাঃ হাবিবুর রহমান জানান,” জেলায় এ পর্যন্ত ১০হাজার ৮৭৬জনের নমুনা পরীক্ষা করে পজেটিভ সনাক্ত হয়েছে ২হাজার ৭৪জন। এরমধ্যে সুস্থ্য হয়েছে এক হাজার ২৬৮জন। আর মৃত্যু হয়েছে ৩৩জনের। ঘরে ঘরে জ্বর দেখা দেয়ায় এখন থেকে ব্যাপক হারে করোনা পরীক্ষার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। যাতে করে করোনা রোগী সনাক্ত করে চিকিৎসার আওতায় আইসোলেশনে নেয়া যায়। ”

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন,” সরকারের নির্দেশনা অনুয়ায়ী লকডাউন বাস্তবায়নে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে সকলের সহযোগীতায়। কর্মহীন ও দরিদ্র মানুষদের ঘরে ঘরে খাবার পৌছে দেয়া হচ্ছে। ৩৩৩ তে ফোন দিলেও খাবার পৌছে দেয়া হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালোনার সময় যারা দরিদ্র তাদের তাৎক্ষণিকভাবে ত্রাণ দেয়া হয়। এসবই করা হচেছ যাতে মানুষ ঘরে থাকে।”