কক্সবাজারে ক্রেতা ঠকানোর ফাঁদে ‘দুবাই সুপার সপ’কে জরিমানা

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

সেপ্টেম্বর ১৭ ২০২০, ০০:৫৫

কায়সার হামিদ মানিক, স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার।

নিত্য নতুন পণ্য ও ভালো ব্যান্ডের জিনিসপত্রের আকর্ষণী বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা চালিয়ে কক্সবাজারে নতুন প্রতারণায় নেমেছে ‘দুবাই সুপার সপ’।ক্রেতা ঠকানোর ফাঁদ পেতেছে তারাবনিয়ারছড়া এলাকার ‘দুবাই সুপার সপ’। পণ্যের গায়ে নিজেদের ইচ্ছামতো দাম বসিয়ে বিক্রি করছে বিভিন্ন জিনিসপত্র। ক্রয়ের সাথে বিক্রির ব্যবধান আকাশ-পাতাল। বিক্রি করা হয় মেয়াদোর্ত্তীণ পণ্যও। এমন অভিযোগে বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে ‘দুবাই সুপার সপ’ এ অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসনের নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট ছৈয়দ মুরাদ। অভিযানে ক্রেতা ঠকানো ও প্রতারণার সত্যতা পাওয়ায় ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় ভোক্তা অধিদপ্তর কক্সবাজার কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক মো. ইমরান হোসাইন উপস্থিত ছিলেন।

ইমরান হোসাইন জানান, অভিযানের সময় বিভিন্ন পণ্যের গায়ে হরেক রকমের দাম দেখা গেছে। তারা নিজেদের ইচ্ছামতো দাম বসিয়ে বিক্রি করছে। পণ্যের নির্দিষ্ট দামের মূল্য তুলে নিয়ে তারা নিজেরাই দাম বসিয়ে বিক্রি করে। এটি ক্রেতাদের সাথে ভয়াবহ প্রতারণা। এছাড়া মেয়াদোর্ত্তীণ পণ্য পাওয়া গেছে দুবাই সুপার সপে। অধিক দামে বিক্রি করা হয় পেঁয়াজও। এসব অভিযোগে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে। এছাড়া পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে বিক্রি করার দায়ের কক্সবাজার হাসপাতাল সড়কের এক দোকানদারকে ৫০০ টাকা ও নতুন বাহারছড়া কাইন্যায়া বাজারের আরেক ব্যবসায়ীকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় অভিযানে।

অপর দিকে বুধবার সকালে কক্সবাজার বড় বাজারেও অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইমরান জাহিদ খান। অভিযানে জেলা মার্কেটিং অভিযান মো. শাহজাহান আলী উপস্থিত ছিলেন।
শাহজাহান আলী বলেন,

পেঁয়াজের মূল্য স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে নিয়মিত বাজার মনিটরিং ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা হয়েছে বুধবার। বাজার মনিটরিং কালীন সময়ে দেখা যায় একজন পাইকারি ব্যবসায়ী তথ্য গোপন করে অধিক মুনাফা অর্জনের উদ্দেশ্যে ৫৪ বস্তা পেঁয়াজ মজুদ রেখেছে। আবার অনেক ব্যবসায়ী মূল্য তালিকা প্রদর্শন করেনি। উক্ত অপরাধের কারণে কৃষি বিপণন আইন, ২০১৮ অনুযায়ী দুই জন ব্যবসায়ীকে ৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।