ঐতিহ্যবাহী বরুণা মাদরাসার ছালানা ইজলাসে মানুষের ঢল

এহসান বিন মুজাহির : দেশ বিদেশের লাখো মানুষের অংশগ্রহণের মধ্যদিয়ে শনিবার ফজরের নামাজ শেষে আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়েছে সিলেট বিভাগের অন্যতমও আন্তর্জাতিক ইসলামী মহাসম্মেলন (ছালানা ইজলাস)। শুক্রবার সকাল ১০টায় পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হয়ে এতে উদ্বেধনী বয়ান পেশ করেন আঞ্জুমানে হেফাজতে ইসলাম, বরুণার পীর শায়খুল হাদিস আল্লামা খলীলুর রহমান হামিদী।

ঊনিশ শতকের শ্রেষ্ঠতম বুযুর্গ শায়খুল ইসলাম আল্লামা লুৎফুর রহমান বর্ণভী রহ’র প্রতিষ্ঠিত মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার ৫নং কালাপুর ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী বরুণা মাদরাসার বার্ষিক আন্তর্জাতিক এই মহাসম্মেলনে অংশ নিতে দেশি-বিদেশি মুসল্লিদের শুক্রবার সকাল থেকেই ঢল নামে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে ওলী, বুযুর্গ, আলেম-ওলামা, বুদ্ধিজীবি, বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, সরকারি কর্মকর্তা, সাধারণ মানুষ, হযরত শায়খে বর্ণভী রহ.’র মুরিদানের আগমনে শ্রীমঙ্গলের বরুণা মাদরাসা ময়দান ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের পদভারে মুখরিত হয়েছিল। সকাল থেকেই দূর দুরান্ত আশপাশের লোকজন জুমার নামাজের জামাতে অংশ নিতে হেঁটে বরুণা মাদরাসা ময়দানে আসেন। বাদ জুম্মা থেকে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের জিকির আসকার ইবাদত বন্দেগিতে বরুনা মাদরাসা ময়দান এক পবিত্র পুণ্যভূমিতে পরিণত হয়েছিলো।

দুপুর ১টায় জামেয়ার দৃষ্টিনন্দন মসজিদ ও সুবিশাল মাঠ জুড়ে লাখো মুসল্লীর অংশগ্রহণে জুম’আ’র নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জুমআর নামাজপূর্বে গুরুত্ব বয়ান পেশ করেন বাহরাইনের চ্যানেল ডিসকবারের জনপ্রিয় উপস্থাপক শায়খ আহমদ খান ও বরুণা মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা শেখ বদরুল আলম হামিদী। নামাযের ইমামতি করেন ভারত থেকে আগত আওলাদে রাসুল সায়্যিদ আসজাদ মাদানী।

মহাসম্মেলনে সকাল ১০টা থেকে শেষ রাত পর্যন্ত বয়ান পেশ করেন ভারতের দারুল উলূম দেওবন্দের প্রধান মুফতি আল্লামা হাবিবুর রহমান ক্বাসেমি।

জামিয়া শেখ বাড়ির প্রিন্সিপাল শায়খুল হাদিস আল্লামা মুফতি রশিদুর রহমান ফারুক বর্ণভী, হাফিজ মাওলানা ওলীউর রহমান বরুণী, জামেয়া রাহমানিয়া ঢাকার প্রিন্সিপাল মুফতি মাহফুজুল হক,জামেয়া দারুল আরকাম আল ইসলামিয়া বি-বাড়িয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা সাজিদুর রহমান, জামেয়া দরগাহ সিলেটের শিক্ষাসচিব মাওলানা আতাউল হক জালালাবাদি, জামেয়া বরুণার নায়বে ছদরে মুহতামিম মাওলানা শেখ নূরে আলম হামিদী, মাওলানা খুরশেদ আলম ক্বাসেমি ও মাওলানা আশরাফ আলী হরষপুরিসহ অর্ধশত আলেম, ইসলামি চিন্তাবিদগণ।

এছাড়াও আন্তর্জাতিক ইসলামী মহাসম্মেল শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক চীফ হুইপ আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুশ শহীদ এম.পি, অলিলা গ্লাস কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: জিল্লুর রহমান, শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুছ ছালেক, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সেক্রেটারি এম ইদ্রিস আলী। শুক্রবার শেষরাতে লাখো মানুষের জিকিরে বিমোহিত হয় আল্লাহু আল্লাহু ধ্বনি। আখেরী মুনাজাতে দেশ, জাতি ও ইসলামের কল্যাণ কামনা করে, আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে বাদ ফজর সম্মেলন সমাপ্তি হয়।