ঈদগাঁওতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি, অভিযানে জরিমানা

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

সেপ্টেম্বর ২০ ২০২০, ১৩:১৭

কায়সার হামিদ মানিক, স্টাফ রিপোর্টার কক্সবাজার: অনুমোদনহীন পন্য বিক্রি, মূল্য তালিকা না রাখা এবং নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য প্রস্তুত করার দায়ে কক্সবাজারের ঈদগাঁও এবং ঈদগড়ে অভিযান চালিয়েছে ভোক্তা অধিদপ্তর কক্সবাজার কার্যালয়ের কর্মকর্তারা। এসময় বিভিন্ন দোকানদারকে ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত অভিযানের নেতৃত্বে দেন ভোক্তা অধিদপ্তর কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. ইমরান হোসাইন।

অভিযানে ঈদগাও এলাকার মেসার্স জাহাঙ্গীর ষ্টোরকে মুল্য তালিকা না রাখা ও অনুমোদনহীন পন্য বিক্রয়ের অপরাধে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। রহিম বাণিজ্যালয়কে মুল্য তালিকা না রাখার অপরাধে ২ হাজার টাকা, ঠিক টক ঝাল বিতানকে নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য প্রস্তুত করার অপরাধে ২ হাজার টাকা, হাজী করিম ষ্টোরকে মুল্য তালিকা না রাখা ও অনুমোদনহীন পন্য বিক্রয়ের অপরাধে ৩ হাজার টাকা, তারেক পলিথিন হাউজকে বিস্ফোরক লাইসেন্স ছাড়া গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রির অপরাধে ৩ হাজার টাকা, হারুন হোটেলকে নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য প্রস্তুত করার অপরাধে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

তাছাড়া ঈদগড় রাস্তার মাথা এলাকার মিশুক এন্টারপ্রাইজকে মুল্য তালিকা না রাখা ও অনুমোদনহীন পন্য বিক্রয়ের অপরাধে ১০ হাজার টাকা, আনার্স এন্টারপ্রাইজকে মুল্য তালিকা না রাখা ও অনুমোদনহীন পন্য বিক্রয়ের অপরাধে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সর্বমোট ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে অভিযানে।

সহকারী পরিচালক মো. ইমরান হোসাইন জানান, অভিযানকালে বিপুল পরিমান নিষিদ্ধ টেস্টিং সল্ট ও জর্দা ধ্বংস করা হয় এবং ব্যাবসায়িদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, রান্নাঘরের মান উন্নয়ন, খাবারে কোন প্রকার নিষিদ্ধ পন্যের ব্যাবহার না করা, মূল্য বেশি না রাখা, এবং আগত অতিথিদের সাথে শোভন আচরন করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

এছাড়া ঈদগাও এবং ঈদগড় রাস্তার মাথা এলাকার মুদির দোকান, কাচা মালের আড়ত, রেস্টুরেন্ট ও গ্যাসের দোকানসহ বিভিন্ন ব্যাবসায় প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করত প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়। অভিযানে সার্বিক নিরাপত্তা প্রদান করেন ঈদগাও তদন্তকেন্দ্রের এক দল সদস্য।