ইসলামের বিরুদ্ধে কোন ষড়যন্ত্র সহ্য করা হবে না: হেফাজত মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

জানুয়ারি ২৯ ২০২১, ২০:৪৮

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব, ঢাকা খিলগাঁও মাখযানুল উলুম মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা নুরুল ইসলাম জিহাদী বলেছেন, বাংলাদেশ ৯০% মুসলিম অধ্যুষিত দেশ। এদেশের মানুষ ইসলাম প্রিয়। ইসলামের বিরুদ্ধে কোন ষড়যন্ত্র এদেশের মানুষ সহ্য করবে না। যারাই ইসলামের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করবে তাদের সমুচিত জবাব দেওয়া হবে।

গতকাল ২৮ ই জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব জামিয়া আজিজুল উলুম বাবুনগর মাদরাসার ৯৮ তম বার্ষিক ইসলামি মহাসম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

আল্লামা জিহাদী আরো বলেন, ইসলাম আল্লাহ তায়া’লার নিকট একমাত্র মনোনীত ধর্ম। ইসলাম চিরশান্তির ধর্ম। ইসলাম ছাড়া কোন ধর্ম আল্লাহ তায়া’লার নিকট গ্রহণযোগ্য হবে না। যারা ইসলাম অনুযায়ী চলবে তারা দুনিয়া ও আখিরাতে সফলকাম হবে। তবে দুঃখজনক হলেও সত্য কিছু মানুষ ইসলামকে খুব কঠিনভাবে পেশ করে। অথচ কঠিন নয়, ইসলামের কোন বিধানই সাধ্যের বাইরে নয়। ইসলামকে কঠিনভাবে পেশ করে ওরা মূলত সাধারণ মানুষকে ইসলাম থেকে দূরে সরাতে চায়। এটাও ইসলাম বিরোধী ষড়যন্ত্রের অংশ বিশেষ।

তিনি আরো বলেন,বিনা কারণে আজ দেশের বিভিন্ন জায়গায় কুরআনের মাহফিলগুলোতে বাঁধা দেয়া হচ্ছে। মাহফিলে বক্তা কে আসবে,না আসবে তা নিয়ে প্রশাসন মাহফিল কর্তৃপক্ষকে রীতিমতো হয়রানি করছে বলেও খবর পাচ্ছি। মনে রাখতে হবে- বাঁধা দিয়ে কুরআনের মাহফিল বন্ধ করা যায় না। ওলামায়ে কেরাম হক্ব কথা বলতে কারো রক্তচক্ষু ভয় করেন না। যতই বাঁধা দেওয়া হবে কুরআনের মাহফিলগুলোতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের উপস্থিতি ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং পাবে,ইনশাআল্লাহ।

কাদিয়ানী ইস্যু টেনে হেফাজত মহাসচিব বলেন, আকিদায়ে খতমে নবুওয়াত তথা হযরত মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে সর্বশেষ নবী অস্বীকারকারী কাদিয়ানীর নিঃসন্দেহে কাফের। ইহুদিদের টাকায় পরিচালিত হয়ে তারা এদেশের সরলমনা সাধারণ মানুষদেরকে ভুল বুঝিয়ে মহামূল্যবান ঈমানকে ছিনিয়ে নিচ্ছে। দেশের বিভিন্ন জায়গায় কাদিয়ানী পল্লী গড়ে তুলে মুসলমানদেরকে কাফের বানাচ্ছে। ৯০% মুসলমানের দেশে কাদিয়ানীদের এমন তৎপরতা চলতে দেয়া যায় না।

তিনি আরো বলেন, আন্তর্জাতিক তাহাফফুজে খতমে নবুওয়াতের ব্যনারে আমি দীর্ঘদিন যাবত কাদিয়ানী ইস্যু নিয়ে কাজ করে আসছি। আমার দীর্ঘদিনের কর্ম অভিজ্ঞতায় বুঝেছি, এদেশে বহু ধর্মাবলম্বী মানুষ বসবাস করলেও কাদিয়ানীরা ইসলাম মুসলমান,দেশ ও স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের জন্য চরম হুমকি। পৃথিবীর বহু রাষ্ট্রে কাদিয়ানীদেরকে সরকারি ভাবে ঘোষণা করা হয়েছে। অনতিবিলম্বে বাংলাদেশেও কাদিয়ানীদেরকে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে।