ইজতিমার নামে কাদিয়ানী সম্মেলনের দু:সাহস মুসলমানরা কোনভাবেই বরদাশত করবে না; খেলাফত মজলিস

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

ফেব্রুয়ারি ০৯ ২০১৯, ০৭:৫৫

পঞ্চগড়ের আহমদনগরে আগামী ২২, ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারী কাদিয়ানী সম্প্রদায় কর্তৃক ’জাতীয় ইজতিমা’ নামে প্রকাশ্য সম্মেলন আয়োজনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে খেলাফত মজলিসের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, ভারতের মির্জা গোলাম আহমদ কাদিয়ানীর অনুসারী কাদিয়ানী সম্প্রদায় মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা. কে শেষ নবী হিসেবে স্বীকার করে না। তারা ‘আহমদীয়া মুসলিম জামাত’ নাম দিয়ে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে মুসলমানদের ঈমান বিধ্বংসী অপতৎপরতায় লিপ্ত। বিশ্বের বিভিন্ন মুসলিম দেশে কাদিয়ানীদের সংখ্যালঘু অমুসলিম হিসেবে ঘোষণা করে ইসলাম ও মুসলমানদের নামে তাদের অপতৎপরতা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অতীতে বাংলাদেশেও কাদিয়ানীদের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে বড় বড় আন্দোলন হয়েছে। কাদিয়ানীদের ঈমান বিধ্বংসী অপতৎপরা সম্পর্কে সরকার ও প্রশাসন কোনভাবেই বেখবর থাকার কথা নয়। কিন্তু তারপরেও নব্বই ভাগ মুসলমানের এইদেশে ’জাতীয় ইজতিমা’ নাম দিয়ে প্রকাশ্যে কাদয়িানী সম্মেলন আয়োজনের দু:সাহস এ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা কোনভাবেই বরদাস্ত করবে না। সরকারকে অবিলম্বে মুসলমানদের ঈমান বিধ্বংসী কাদিয়ানী সম্প্রদায়ের ঐ সম্মেলন বাতিল করতে হবে।

কাদিয়ানীদের মদদ দাতা দেশী-বিদেশী চক্রকেও চিহ্নিত করতে হবে।
বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় আগামী ২২, ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারী পঞ্চগড়ের অমুসলিম কাদিয়ানী সম্প্রদায় কর্তৃক আয়োজিত ’জাতীয় ইজতিমা’ অবিলম্বে বন্ধ ঘোষণার দাবী জানান এবং একই সাথে মহানবী হয়রত মুহাম্মদ সা. কে শেষ নবী হিসেবে অস্বীকারকারী কাদিয়ানী সম্প্রদায়কে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলমান ঘোষণা ও তাদের ঈমান বিধ্বংসী সকল অপতৎপরতা বন্ধের জোর দাবী জানান।