আড়াই মাস স্বামীর মৃতদেহের উপরে বসেই রান্না করেন স্ত্রী

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

জুলাই ১৭ ২০২১, ১৩:১৩

স্বামীর পরকীয়ার জেরে স্বামী আরাফাত মোল্লাকে হত্যা করে রান্নাঘরে মৃতদেহ মাটি চাপা দেন স্ত্রী আকলিমা বেগম। এরপর সেই মৃতদেহের উপরে বসেই দুই মাস ১৪ দিন রান্নাসহ সকল কাজকর্ম চালিয়েছেন তিনি।

রোমহর্ষক এই ঘটনা ঘটেছে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার পূর্বশীলমন্দি এলাকায়। স্বামীকে হত্যা করে নিজেই থানায় গিয়ে নিখোঁজের সাধারণ ডায়েরী করেছিলেন আকলিমা। তারপর চুপচাপ ছিলেন। তবে এই নির্মমতা বেশিদিন ধরে রাখতে পারেননি আকলিমা। গল্পের ছলে নিজের অজান্তেই ফাঁস করে দিয়েছেন হত্যাকাণ্ডের কথা।

কয়েকদিন ধরেই আকলিমা বেগমের আচরণ সন্দেহজনক মনে হয় এলাকাবাসীর। নানাভাবে তাকে প্রশ্ন করা হলে এক পর্যায়ে একজনের কাছে গোপন রাখার শর্তে ঘটনা স্বীকার করে। তিনি স্বীকারোক্তি মোবাইলে গোপনে রেকর্ড করে ফেলে। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায় সেই তার কথা বলার ভিডিও।

শুক্রবার (১৫ জুলাই) তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তার দেখানো স্থান থেকে স্বামীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, আড়াই মাস আগে ২ মে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় শহর শাখা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আরাফাত মোল্লা (৫০) নিখোঁজ হন। থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন স্ত্রী আকলিমা। পরে তদন্তে আকলিমাকেই সন্দেহ করে পুলিশ। শুক্রবার সকালে আরাফাত মোল্লার স্ত্রী আকলিমা বেগম-এর একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেই ভিডিওতে দেখা যায় আকলিমা বেগম তার স্বামী আরাফাত মোল্লাকে যেভাবে হত্যা করেছেন তার বর্ণনা করছেন। এরপর সন্ধ্যা ৬টার দিকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু বকর সিদ্দিক জানান, আরাফাত মোল্লা গত ২ মে সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে নিখোঁজ হলে তার স্ত্রী আকলিমা বেগম ১৫ মে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে আরাফাত মোল্লাকে পুলিশ খোঁজ করতে থাকে। পরবর্তীতে ৩০ মে দ্বিতীয় দফায় আকলিমা বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আমরা বিভিন্নভাবে তদন্ত করতে থাকি। আকলিমাকে গ্রেফতারের পর তার দেখানো স্থান থেকেই মৃতদেহ উত্তোলন করা হয়। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মৃতদেহ মাটি চাপা দেওয়ার সময় আকলিমাকে সহযোগীতা করার অপরাধে রিয়াজ (২৫) নামে আরেক যুবককে আটক করা হয়েছে। সে হত্যাকাণ্ডের সংগে জড়িত কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

স্বামীর পরকীয়ার জন্য এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে পুলিশকে জানিয়েছেন আকলিমা বেগম। আরাফাত মোল্লাকে খাবারের সাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে হত্যা করা হয়।

সৌজন্যে: বাংলাভিশন