আল্লামা বাবুনগরী’র কোন ঋণ নেই, ফান্ডও করা হয়নি: পরিবার

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

আগস্ট ২৭ ২০২১, ১৭:১৫

সদ্য প্রয়াত উপমহাদেশের বিখ্যাত হাদীস বিশারদ, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, দারুল উলূম হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী (রহ.)এর পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা ও দারাজাত বুলন্দির জন্য দুআর আবেদন জানিয়ে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে এক বিশেষ বার্তা প্রকাশ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) প্রকাশিত বার্তায় আল্লামা বাবুনগরীর মেয়ের জামাতা মাওলানা আব্দুল্লাহ বলেন, মহান আল্লাহ তায়ালার ডাকে সাড়া দিয়ে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী (রহ.) না ফেরার দেশে চলে গেছেন।

আল্লামা বাবুনগরী (রহ.)এর ইন্তেকালের আজ ৯ দিন গত হতে চলেছে। পরিবারের পক্ষ থেকে দেশবাসীর কাছে আমরা তাঁর রুহের মাগফিরাত ও দারাজাত বুলন্দির জন্য বিশেষ দুআ কামনা করছি।

তিনি বলেন, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী (রহ.) অত্যন্ত সাদাসিধে জীবনযাপন করে গেছেন। দারুল উলূম হাটহাজারী মাদরাসা থেকে প্রাপ্ত বেতন এবং একান্ত মুহাব্বতের ব্যক্তিবর্গ থেকে পাওয়া সামান্য হাদিয়ার টাকায় স্বাভাবিক জীবনযাপন করতেন তিনি । জীবদ্দশায় তিনি কারো কাছ থেকে কোন টাকা-পয়সা কর্জ, ধার করেছেন বলে আমরা খবর পাইনি। ইন্তেকালের পর জনৈক ব্যক্তি কিছু টাকা কর্জ পাবেন বলে আমাদেরকে অবগত করেছেন। বিষয়টি অবগত হওয়ার সাথে সাথে আমরা পারিবারিকভাবে কর্জদাতার সাথে আলোচনা করে তার সমাধান করেছি। বর্তমানে আল্লামা বাবুনগরী (রহ.)এর কোন কর্জ বাকি নেই।

মাওলানা আব্দুল্লাহ আরো বলেন, আমাদের কাছে খবর এসেছে কেউ কেউ আল্লামা বাবুনগরী (রহ.)এর কর্জ রয়েছে উল্লেখ করে তা পরিশোধের নাম দিয়ে তহবিল গঠনের উদ্যোগ নিচ্ছেন। আমরা পরিবারের পক্ষ থেকে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে সুস্পষ্টভাবে জানাচ্ছি যে, আমাদের জানামতে আল্লামা বাবুনগরী (রহ.)এর কোন কর্জ নেই। তাই কর্জ পরিশোধের নামে কোন ফান্ড গঠন, কারো কাছ থেকে টাকা কালেকশন ইত্যাদিতে কাউকে না জড়াতে এবং কর্জ নিয়ে কোন ধরনের বিভ্রান্তি না ছড়াতে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি বিনীত অনুরোধ করছি। কেউ যদি কর্জ পরিশোধের নামে কোন টাকাপয়সা উত্তোলন করে, তাহলে এর দায়ভার পরিবারের উপর বর্তাবে না।

তিনি বলেন, জীবদ্দশায়ও আল্লামা বাবুনগরী (রহ.) তার নিজের জন্য তহবিল গঠন করে টাকা-পয়সা উত্তোলন ইত্যাদিকে খুব অপছন্দের চোখে দেখতেন। এ ব্যাপারে তিনি খুব কঠোর ছিলেন। এমনকি বিভিন্ন সময়ে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায়ও তাঁর ছাত্র-ভক্তবৃন্দরা নিজেদের উদ্যোগে টাকা তুলে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে চাইলে তিনি তা সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছেন। সুতরাং আল্লামা বাবুনগরী (রহ.)এর ইন্তেকালের পর তাকে ঘিরে এ ধরনের কোন কাজ না করার জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে সবিনয়ে অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

বার্তার শেষে মাওলানা আব্দুল্লাহ সকলের কাছে দুআ কামনা করে বলেন, আল্লাহ তায়ালা যেন আল্লামা বাবুনগরী (রহ.)-কে জান্নাতুল ফিরদাউস নসিব করেন এবং হযরতের শোক সন্তপ্ত পরিবার বর্গকে সবরে জামিল দান করেন, আমিন।