আমাদের উচিত তালেবানদের স্বীকৃতি দেওয়া: ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

আগস্ট ১৭ ২০২১, ১৭:০৮

স্টাফ রিপোর্টার:  তালেবানদের মুক্তিযোদ্ধা দাবি করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘আজকে আফগানিস্তানে তালেবানরা জয়ী হয়েছে। তালেবান কারা? তারা আফগানিস্তানের মুক্তিযোদ্ধা

তিনি বলেন, দীর্ঘ বিশ বছর বিদেশি শাসন থেকে মুক্তির জন্য তালেবান সংগ্রাম করছে। আজকে অন্যদেশের মুক্তিযুদ্ধকেও শ্রদ্ধা করতে শেখা উচিত। বঙ্গবন্ধু কিন্তু বলে গিয়েছিলেন, যেখানেই মুক্তির আন্দোলন হবে তাতে আমরা সমর্থন করবো। আমাদের উচিত তালেবানদের স্বীকৃতি দেওয়া।’

মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে বাংলাদেশ লেবার পার্টি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব বলেন।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, ‘আজকে যদি আমরা স্বীকৃতি না দেই, তারা ভারতের মতো হিন্দুত্ববাদের দিকে যাবে। সেখানে উদারপন্থী ইসলামী রাষ্ট্র না হয়ে একটা ধর্মান্ধ রাজনীতি শুরু হতে পারে। সেখানে যদি আমরা এখনই তাদের স্বীকৃতি দেই, তাদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করি, তাদের আমরা প্রভাবিত করতে পারবো। আমরা একটা উদার ইসলামিক রাষ্ট্র করতে পারবো। তাছাড়া আমাদের লাভ হচ্ছে সেখানে লক্ষাধিক বাংলাদেশির কর্মসংস্থান হবে। এটা ভুলে গেলে চলবে না, আমরা যদি সেই জায়গা না নেই তাহলে হিন্দুত্ববাদী ভারত নিয়ে নেবে। তাই আজকে তালেবানদের বাইরে ঠেলে না দিয়ে সমর্থন করার দরকার আছে।’

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘দুদিন আগে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে অনুরোধ করেছিল, হাজার বিশেক আফগানকে সাময়িক সময়ের জন্য জায়গা দিতে। গোয়ার্তুমি করে না করে দেওয়া হয়েছে। এটা একটা ভুল কাজ হয়েছে। এই ভুল কাজ করে নোবেল প্রাপ্তির থেকে দূরে সরে গেলেন। অনুরোধটা রাখা উচিত বলে আমি মনে করি। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আমরা একের পর এক ভুল করে যাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি কর্মীরা শ্রদ্ধা জানাতে গেছে মাজারে। তাদের পুলিশ দিয়ে পেটাবেন, এটা তো ঠিক কাজ না। এগুলো করে আপনারা খুব খারাপ উদাহরণ সৃষ্টি করছেন। একদিন দেখবেন এরাই হয়তো আপনাদের দিকে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। আমি অনুরোধ করি, এগুলো বন্ধ করেন। বিএনপির প্রতি আমার অনুরোধ, আপনারা রুখে দাঁড়ান।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ড মোস্তাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ।