আবারো চলন্ত বাসে চবি ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা

একুশে জার্নাল

একুশে জার্নাল

এপ্রিল ১৩ ২০১৯, ০০:৩২

যখন গোটা দেশ নুসরাত হত্যার প্রতিবাদে উত্তপ্ত ঠিক একই সময় অল্পের জন্য ঘটে যেতে পারতো আরো একটি নেক্কারজনক ঘটনা যা আবার নাড়া দিতো সমগ্র জাতির বিবেককে।

গতকাল ১১ই এপ্রিল (বৃহস্পতিবার)চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানাধীন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে নগরীর নিউমার্কেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা ৩নং রুটের এক বাসে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক ছাত্রী বাস হেল্পার দ্বারা লাঞ্ছনার শিকার হয়।

সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি প্রথম বর্ষের ঐ ছাত্রী ঘটনার দিন বিকালে ক্লাস শেষ করে আনুমানিক ৩ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় ১ নং গেইট হতে ৩ নং বাসে উঠে। বাসটি নগরীর রিয়াজউদ্দিন বাজার এলাকায় পৌঁছালে ভুক্তভোগী ছাড়া সকল যাত্রী একে একে নেমে গেলে সে অল্পদূরত্ব পর নিউমার্কেট মোড়ে নামার জন্য বাসেই অবস্থান করে। বাসে তাকে একা পেয়ে হঠাৎ বাসটি তার রাস্তা বদল করে স্টেশন রোডের দিকে চলতে শুরু করে। তখন ভুক্তভোগী মেয়েটি নিরাপত্তার স্বার্থে বাস ড্রাইভারকে বাস থামাতে বললে হঠাৎ বাসের হেল্পার তার দিকে ধেয়ে যায় এবং তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে তার শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করে, সেসময় দম বন্ধ হয়ে আসলে কিছুক্ষণ হাতাহাতির পর মেয়েটি আত্মরক্ষার্থে তার হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে হেল্পারটিকে আঘাত করে চলন্ত বাস থেকেই প্রাণরক্ষার্থে লাফ দেয় এবং এক রিক্সাওয়ালার সাহায্যে শরীরে আঘাতের চিহ্ন নিয়ে বাসায় ফিরে।

আরো জানা যায়, ঘটনার সময় সে বাসের ড্রাইভারটিও মেয়েটিকে ‘ধর মেয়েটারে’ বলে হেল্পারকে উৎসাহ যোগাচ্ছিল। এদিকে এমন ঘটনার পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুক্তভোগীর ঘটনা বর্ণনা দেওয়া একটি স্ট্যাটাস শেয়ার হতে শুরু করার মধ্য দিয়ে ঘটনাটি ছড়ানোর পর অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। প্রশাসনের নিকট এই ঘটনার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাই উক্ত বিভাগের শিক্ষার্থী সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চবি’র একই বিভাগে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা জানায় সর্বোচ্চ শাস্তির বিচার প্রশাসন থেকে না পেলে শিক্ষার্থীরা ক্লাস পরীক্ষা বর্জনসহ প্রয়োজনে যেকোন প্রদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত থাকবে এবং নিরাপত্তার খাতিরেই ভুক্তভোগীর নাম গোপন রাখার নির্দেশ দিয়েছেন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।