আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে জাতির জন্য কোনো দিকনির্দেশনা ছিল না ; ফখরুল

একুশে জার্নাল ডটকম

একুশে জার্নাল ডটকম

ডিসেম্বর ২১ ২০১৯, ১৬:২১

আওয়ামী লীগের ২১তম কাউন্সিল নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে জাতির জন্য কোনো দিকনির্দেশনা ছিল না।’

শনিবার আওয়ামী লীগের কাউন্সিল নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এর আগে দলের সদ্য প্রয়াত বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কবীর মুরাদের স্মরণে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। জিয়া পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খানের সভাপতিত্বে ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে জাতি হতাশ। কারণ আওয়ামী লীগের ২১তম কাউন্সিলে জাতির জন্য কোনো দিকনির্দেশনা ছিল না। গণতন্ত্রহীনতা থেকে উত্তরণের পথ দেখাতে পারেনি দলটি।’

তিনি বলেন, ‘সংবিধানকে পুরোপুরি নস্যাৎ ও উপেক্ষা করে, গণতন্ত্রহীন একটা অবস্থা তৈরির মাধ্যমে দেশে একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ প্রায় এক দশক ধরে কাজ করছে। আমরা তাদের সম্মেলনে দেখতে পেলাম সেই কথাগুলোই আবার সামনে এসেছে। ফলে জাতি সম্পূর্ণভাবে হতাশ হয়েছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘জাতির একটা প্রত্যাশা ছিলো যে, হয়তবা গণতন্ত্র উত্তরণের একটা পথ দেখা যাবে। কিন্তু তাদের (আওয়ামী লীগ) সম্মেলনে সেই পথ তারা দেখাতে পারেননি। একই সঙ্গে দেশের অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক যে উন্নয়ন এবং সংকট উত্তরণে কোনো দিকনির্দেশনা দিতে তারা এই সম্মেলনে ব্যর্থ হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এখানে ব্যক্তি ও দলের প্রশংসা, যেটাকে আমরা বলি বন্ধনা করা হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে জাতির যে সংকট, সেই সংকট উত্তরণের জন্য বেশি কিছু এই সম্মেলনে আসেনি। দুর্ভাগ্যজনকভাবে তাদের যে অবস্থান অর্থাৎ একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে তারা এগিয়ে যাচ্ছে এবং জনগণের যে গণতান্ত্রিক আশা-আকাঙ্খা সেটা উপেক্ষা করা হয়েছে।’

বিএনপির কাউন্সিল বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, আমরা একটা প্রচণ্ড বৈরী ও প্রতিকূল অবস্থার মধ্যে দিয়ে রাজনীতি করছি। আমাদের রাজনীতির জন্য যে স্পেস দরকার, আমরা এখানে পাচ্ছি না। যার ফলে আমাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম আমরা পরিচালনা করতে পারি না। বেশির ভাগ জায়গায় আমাদের কাউন্সিল করতে দেয়া হয় না। বিশেষ করে জেলা ও উপজেলাগুলোতে আমাদের যে কাউন্সিল সেগুলো করতে দেয়া হয় না। এর মধ্যেও আমরা কাজ করছি। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে আমাদের সংগঠনকে গুছিয়ে আনা হচ্ছে। আমরা যত দ্রুত সময়ে সম্ভব এটা শেষ করবো। এর মধ্যেই হয়তবা আমরা কাউন্সিল করতে চেষ্টা করব।’